ব্রেকিং নিউজ:
কলোম্বোয় ক্যালিপসো উৎসব,টি-২০ ফাইনালে ক্যারিবিয়ানরা
পার্থ তানভীর নভেদ/দেব চৌধুরী    অক্টোবর ০৫, ২০১২, শুক্রবার,     ০৮:১৭:০৬

 

টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য লড়বে ওয়েস্ট ইন্ডিজ আর শ্রীলংকা। একপেশে সেমিফাইনালে ৭৪ রানে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে রোববার ফাইনালে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে মোকাবেলা করবে ক্যারিবিয়ানরা। কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জয়ের নায়ক ক্রিস গেইল। মাত্র ৪১ বলে তার ৬টি ছক্কা ও ৫টি চার সমৃদ্ধ অপরাজিত ৭৫ রানের দুর্দান্ত ইনিংসে ছয় বছর পর ক্যারিবিয়ানরা উঠেছে বড় কোনো ক্রিকেট ফাইনালে।
টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৪ উইকেটে ২০৫ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জবাবে ২০ বল বাকি থাকতে ১৩১ রানেই অলআউট হয়ে যায় গত আসরের রানার্স-আপ অজিরা। ম্যাচসেরা হয়েছেন ক্রিস গেইল।
সতর্ক আর বেশি বল না পাওয়া গেইল শুরুটা করছেন রয়ে সয়ে। প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া হলেই কি ছয়-চারের ভুত চাপে গেইলের মাথায়। টুর্নামেন্টের তিন হাফসেঞ্চুরির দুটোই এই অজিদের সাথে। আজকেরটায় আবার ম্যাচ-জেতানো পারফর্মেন্স। স্ট্রাইক পাচ্ছিলেন না। তাই হয়তো ঠিকমতো মনও লাগাতে পারছিলেন না। কিছুটা নড়বড়েও মনে হচ্ছিল। ঝড়ের আগে বাতাস নাকি কমে যায়,সেরকমই কিছু কি?
৫ম ওভারের শেষ বলে ওয়াটসনকে গ্যালারিতে উড়িয়ে শুরু গেইল তান্ডবের। পরের ওভারেরও শেষ বলে পেসারের বদলে স্পিনার জাভিয়ের ডোহার্টির বলেওএকই ফল । সুইং হলো, বল ঘুরলো, শর্টপিচ বা আউট সাইড অফস্ট্যাম্প, কিংবা লেন্থ বল; চেষ্টা চললো সবরকম। কিন্তু কাজে দিলোনা কিছুই। ক্যারিবিয়ান হ্যারিকেন তখন রীতিমতো তান্ডব। ২০ ওভার শেষে ৬টা ছয়, চার একটা কম,একচল্লিশ বলে পঁচাত্তর। ম্যান অব দ্যা ম্যাচ।
টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় সেরা স্কোরার, সবচে বেশি ছয় ষোলটি। এখনও বাকি ফাইনাল। গেইল ঝড় শ্রীলঙ্কানরা থামাতে পারবে কি?
ব্যাট করতে নেমে প্রথম ৫ ওভারে জনসন চার্লসকে (১০) হারিয়ে ৩৩ রান সংগ্রহ করা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১০ ওভারে ২ উইকেটে ৭৪ রানের ভালো ভিতের ওপর দাঁড় করায় মারলন স্যামুয়েলস ও গেইলের আক্রমণাত্মক ব্যাটিং। দলীয় ৫৭ রানে প্যাট কামিন্সের স্লোয়ারে স্যামুয়েলস (২০ বলে ২৬) বোল্ড হলে ভেঙ্গে যায় ৪১ রানের জুটি।
স্যামুয়েলসের বিদায়ের আগ পর্যন্ত মোটামুটি শান্তই ছিলেন গেইল। সে সময় ১৬ রানে ব্যাট করা বাঁহাতি এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তৃতীয় উইকেটে ডোয়াইন ব্রাভোকে পেয়ে খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসেন। ১১ থেকে ১৫ ওভারে অবিচ্ছিন্ন থেকে ৫৮ রান সংগ্রহ করে দলকে বড় স্কোরের দিকেই নিয়ে যান তারা। ব্রাভোকে (৩১ বলে ৩৭) জর্জ বেইলির ক্যাচে পরিণত করে ৮ ওভার ৩ বলে তাদের ৮৩ রানের জুটি ভাঙ্গেন কামিন্স।
ব্রাভোর বিদায়ের পর অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের ওপর আরো চড়াও হন গেইল ও কাইরন পোলার্ড। ৪ ওভার ১ বলে তাদের ৬৫ রানের জুটির সৌজন্যে দুশ পেরোয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ইনিংসের শেষ বলে ওয়ার্নারের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেয়ার আগে ১৫ বলে ৩টি করে চার ও ছক্কার সাহায্যে ৩৮ রান করেন পোলার্ড।
জাভিয়ের ডোহার্টির শেষ ওভারে ২৫ রান নেন গেইল-পোলার্ড। এর মধ্যে পোলার্ড আউট হওয়ার আগের তিন বলকে উড়িয়ে সীমানা ছাড়া করেন। তাদের দাপুটে ব্যাটিংয়ে শেষ ৫ ওভারে ৭৩ রান সংগ্রহ করে ড্যারেন স্যামির দল।
মওকা পেয়ে জেঁকে বসেছে স্পিন। মাঝেসাঝে মার খেলেও চেপে ধরছে রানের চাকা। শিকল ছিঁড়লেন ব্রাভো, ঝড়টা গেলো টুর্নামেন্ট সেরা ওয়াটসনের উপর দিয়ে। ৭৭ বলে ১০০তে ব্রাভোর দল। ওতেও তুষ্ট না গেইল। বইয়ে দিলেন টর্নাডো। ডেভিড হাসির এক ওভারে ১৯, গেইলের ২৯ বলে ৫০।
দু:সাহসী তিন ছক্কায় ৩৭ রান করা ব্রাভো যখন ফিরলেন তখন ৫১ বলে উঠেছে ৮৩, দলের স্কোর ১৪০। তখনও অজিরা টের পায় নি, এখনো রয়েছে বাকি ৎসুনামির।
বেদম মারের জন্য খ্যাত পোলার্ড শেষ ওভারে লজ্জাতেই ফেলে দিলেন ছক্কা মাস্টার গেইলকে। ডোহার্টির শেষ ওভারে পোলার্ড ছক্কা মেরেছেন তিন খানা- ফলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ এ আসর সেরা ২০৫ ।
চাই ওভারে সোয়া দশের উপর। বোলার পিটানোর কারবারি ওয়াটসন-ওয়ার্নার। ভয় কি? নতুন বলে, দুধারেই স্পিন নামিয়ে আতঙ্কটা ছড়ালেন, চতুর স্যামি। বদ্রির বলে ওয়ার্নারের পর টুর্নামেন্ট সেরা ওয়াটসনেরও ছুটি। ২৯ রানেই পড়লো, ডেপেন্ডেবল হাসিরটা শুদ্ধ ৩উইকেট।
আরেক জোড়া বাড়ি লড়বার ভুত তাড়িয়ে দিয়েছিলো অস্ট্রেলিয়ার মাথা থেকে। রামপলের একই ওভারে ওয়াইট আর ডেভিড হাসি।
৪৩ এ ৬উইকেট পড়ার পরে কিছু ক্রিকেট মজা দিয়ে গেছেন অজি ক্যাপ্টেইন বেইলি। ২৯ বলে ৬৩। একপেশে ম্যাচেও দর্শকদের পয়সা উশুল। কিন্তু ওইটুকুই।
ঝড়-ঝঞ্ঝার দেশের মানুষগুলো ওই আবহাওয়ার ছোঁয়া নিয়ে এসেছে আরেক দ্বীপ, শ্রীলংকায়। তাড়িয়েছে অজি জুজু। আবার কি ফিরছে সত্তরের দুর্ধর্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ? অতশত ঝাপ্টা, লংকানরা, সামলাতে পারবে তো?

পি. টি. এন./ ডি. সি./ এম. এস./১১.২৩
বিভাগ: খেলাযোগ   দেখা হয়েছে ৫৩১ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :