ব্রেকিং নিউজ:
আজ স্পেনের স্থানীয় সরকার নিবার্চন
নিউজ ডেস্ক    অক্টোবর ২১, ২০১২, রবিবার,     ০১:৩৭:৩৫

 

তিন বছরের মধ্যে দু’বার মন্দা। বেকারত্বের হার ২৫ শতাংশ। এই অবস্থায় আজ স্পেনের স্থানীয় সরকার নিবার্চন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নির্বাচন স্পেনের বর্তমান অবস্থার কোন পরিবর্তন আনবে না বলেই ভোটাররা মনে করছেন। তবে নির্বাচনী প্রার্থীরা অবস্থার উন্নয়নে আশাবাদী।
অর্থনীতি ও বেকারত্বই যে স্পেনের আজকের নির্বাচনের মূল ইস্যু তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। ক্ষমতায় আসা নতুন সরকারের প্রধান লক্ষ্য হবে বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করার জন্য খরচ কমানো, কর বাড়ানো এবং শ্রম খাত পুনর্গঠন।
শহরগুলোর ভবন ও রাস্তার পাশে নির্বাচনী পোস্টারে ছেয়ে গেছে। তবে ভোট হলেও পরিস্থিতির তেমন উন্নতি হবে না মনে করছেন ভোটাররা। বিশেষত কর্মসংস্থান খাতে। ভোটাররা বলছেন, দেশে সংকট চলছে। কোন কর্মসংস্থান নেই। কিছুই নেই, এক্কেবারে কিছুই নেই।
বৃদ্ধদের অনেকেই অবসরে গেছেন, আমরা হয়তো সমাধান খুঁজে পাবো। কিন্তু কাজের সুযোগ ছাড়া তরুণদের পরিস্থিতি খুবই কঠিন। যদিও নির্বাচনে অংশগ্রহণকারীরা পুরো চিত্রটিকে হতাশাজনক মানতে নারাজ।
বাস্ক ন্যাশনালিস্ট পার্টির প্রার্থী জসুন গোরেস্পের মতে, সম্পূর্ণ নতুন দৃশ্যপট তৈরি হয়েছে। যা স্থিরতা ও শান্তি ফিরিয়ে আনবে। অর্থনীতিও পুনরুজ্জীবিত হবে।
জসুনের ন্যাশনালিস্ট পার্টি বাস্ক শহরে নির্বাচনী দৌড়ে এগিয়ে আছে। মন্দা কবলিত স্পেনে এই শহরটির অর্থনৈতিক অবস্থা অন্য যেকোন শহরের চেয়ে ভালো। তা স্বত্ত্বেও ভোটারদের মূল আগ্রহের বিষয় কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং প্রবৃদ্ধি।
স্পেনের অপর উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় শহর গালিসিয়া ২২ শতাংশ বেকারত্বের হার নিয়ে মন্দায় ধুঁকছে। এই শহরের বাসিন্দা ২৭ বছরের সান্ড্রা মাত্র কিছুদিন কাজ করার পর দু’বছর ধরে বেকার রয়েছেন। ভোট নিয়ে তারও তেমন কোন উচ্ছ্বাস নেই।
গালিসিয়ার অধিবাসী সান্ড্রা সিলভা বলছেন, আমি মনে করি সবকিছুই ভুয়া। এর ফলে কিছুই হবে না। সবসময়ই পরিস্থিতি আরো খারাপের দিকে যাচ্ছে। সবকিছুই ব্যয় বহুল হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু কোন চাকুরি নেই। আমি এর সন্ধানে ঘুরছি কিন্তু কিছুই খুঁজে পাচ্ছি না।
সান্ড্রা তার মায়ের সাথে বসবাস করে। দু’জনের সংসারে একমাত্র আয়ের উৎস মায়ের অবসর মাসিক ৪০০ ইউরো ভাতা। তবে হতাশা থাকলেও ভোটে অংশ নেবেন তিনি।
এস.এম.বি/০১.৪৫

বিভাগ: বিশ্বযোগ   দেখা হয়েছে ৬০৬ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :