ব্রেকিং নিউজ:
আওয়ামী লীগই জনগণকে ভোটাধিকার ফিরিয়ে দিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী
    জুন ২২, ২০১৩, শনিবার,     ১১:২৭:২৪

 

নির্বাচনের সময় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি নাকচ করে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ভোট চুরির কোনো ইচ্ছা আওয়ামী লীগের নেই; কারণ, বিএনপির কাছে থেকে তারাই জনগণের কাছে ভোটাধিকার ফিরিয়ে দিয়েছে। আগামী সাধারণ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠানে দৃঢ় প্রত্যয় জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে তার সরকারের আমলেই চার সিটি করপোরেশনসহ সব নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে, কাজেই তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কোনো প্রয়োজন নেই্।’
শনিবার সকালে গণভবনে রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের সাথে মতবিনিময়ের সময় তিনি এসব কথা জানান।
তত্ত্বাবধায়ক সরকার পদ্ধতির ধারণা ছেড়ে গণতন্ত্রের পথে ফিরে আসার জন্য বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘দয়া করে গণতন্ত্রের পথে ফিরে আসুন। বিশ্বের অন্যান্য দেশে যেভাবে নির্বাচন হয়, আগামী সাধারণ নির্বাচনও সেভাবেই হবে। সে নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে।’
তত্ত্বাবধায়ক পদ্ধতির সরকার বিষয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকার তিন মাসের বদলে দুই বছর ক্ষমতা আঁকড়ে ছিল। তাদের দমন-পীড়ন ও অত্যাচার থেকে রাজনীতিবিদ, শিক্ষক, ছাত্র, ব্যবসায়ী—কেউই রেহাই পাননি।’
তিনি আরও শংকা প্রকাশ করেন, ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকার এলে দেশে আর সংসদ নির্বাচন হবে না। বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকার খালেদা জিয়াকেও জেলে পাঠিয়েছিল। আবারও এমন সরকার ক্ষমতায় এলে তাঁকেও জেলে যেতে হতে পারে।’
তাঁর সরকারের আমলে অনুষ্ঠিত নির্বাচনের নিরপেক্ষতা নিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘এসব নির্বাচন প্রশ্নাতীতভাবে অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে, জনগণ যাকে চেয়েছে, তাকেই নির্বাচিত করেছে। এ ধরনের নির্বাচন করার সাহস শুধু আওয়ামী লীগের‌ই আছে এবং তারা আগামী নির্বাচনও সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে আয়োজন করতে পারবে।’
প্রতিটি জেলায় দলের সাংগঠনিক অবস্থা জানতে সভাপতির সাথে ধারাবাহিক আলোচনায় অংশ হিসেবে এদিন গণভবনে আসেন রংপুর জেলার তৃণমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা।
আওয়ামী লীগ সভাপতি তাদের উদ্দেশ্য বলেন, রংপুরের মানুষকে মঙ্গার অভিশাপ থেকে মুক্তি দিয়েছে বর্তমান সরকার। রংপুরের পাশাপাশি সারাদেশের বিদ্যুৎ উৎপাদন বেড়েছে, সরকারি করা হয়েছে ২৬ হাজার প্রাথমিক স্কুল। সরকার দরিদ্র মানুষে সংখ্যা কমাতে পেরেছে, এর আন্তর্জাতিক স্বীকৃতিও মিলেছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আগামীতে বিএনপি ক্ষমতায় এলে এসব উন্নয়ন বন্ধ করে দেবে।
আগামী নির্বাচনের জন্য যথেষ্ট প্রস্তুতি নিতে তিনি দলের নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেন।
মতবিনিময় সভায় দলের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, কোষাধ্যক্ষ এইচ এন আশিকুর রহমান, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, কেন্দ্রীয় নেতা আবুল হাসনাত আবদুল্লাহ, এনামুল হক শামীমসহ রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, জাতীয় কমিটির সদস্য, দলের সংসদ সদস্য, জেলা পরিষদের প্রশাসক, পৌরসভার মেয়র ও কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।

এম. এস/১৭.৪৫
বিভাগ: সংবাদ সংযোগ   দেখা হয়েছে ৪৪০ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :