ব্রেকিং নিউজ:
LIVE TV
ফেসবুক ব্যবহারে এগিয়ে আসছে রাজনীতিবিদরা
মাহফুজ মারজান    জুলাই ০১, ২০১২, রবিবার,     ০৮:৩৮:৪৪

 

ফেসবুক কি শুধু তরুণদেরই মুখচ্ছবি? ফেসবুক ব্যবহারকারী হিসাবে তরুণদের সংখ্যা বেশী হলেও আসলে সব বয়সের মানুষকেই এখন দেখা যাচ্ছে সামাজিক যোগাযোগের এ মাধ্যমে। দিন দিন বাড়ছে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যাও । তরুণ-তরুণীর সাথে যুক্ত হচ্ছেন রাজনীতিবিদরাও। জনমত গঠন ছাড়াও নানা ভাবে রাজনীতিতে ব্যবহৃত হচ্ছে ফেসবুক।
২০১০ সালের মধ্যপ্রাচ্যে শুরু হওয়া আরব বসন্তের সাফল্যের বড় দাবিদার ফেসবুক- টুইটার। আরব বসন্তের সাফল্য ফেসবুককে দিয়েছে ‘প্রতিরোধের মঞ্চ’র স্বীকৃতি।
২০০৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তার নির্বাচনী প্রচারণায় ফেসবুককে কাজে লাগিয়ে ভোটারদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ গড়ে তুলেছিলেন।
বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত আমাদের দেশের রাজনীতিবিদরাও ক্রমশ বেছে নিচ্ছেন ফেসবুককে- ব্যক্তিগত-সামাজিক সকল যোগাযোগের মাধ্যম হিসাবে।
সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ও বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য ড.আব্দুল মইন খান মনে বলেন, “বিশ্বয়নের যুগে মানুষ বিশ্ব নাগরিক হয়ে উঠছে আর মাধ্যম হিসাবে ব্যবহৃত হচ্ছে ফেসবুক। এর মাধ্যমে হাজার মাইল দূরের মানুষের সাথেও যোগাযোগ করা যায়, মতামত আদান প্রদান করা যায়। অনেক দূর থেকেও মনে হয় কাছাকাছিই থাকছি সকলের”।
আওয়ামী লীগের সামনের সারির প্রত্যেক নেতারই আছে ফেসবুকে ফ্যানপেজ। যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী, সিলেটের সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরী সহ অনেকেই ফেসবুকের সক্রিয় ব্যবহারকারী।
যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, “আমিতো ফেসবুকের নতুন ব্যবহারকারি নই। সাড়ে ৩ বছর আগে থেকেই ব্যবহার করছি। এর মাধ্যমে মানুষ তাদের দুঃখ কষ্ট, সমস্যা রাজনীতিবিদদের সাথে শেয়ার করতে পারে।
ফেসবুকে একাউন্ট আছে বিজেপি’র সভাপতি আন্দালিব রহমান পার্থরও।ফ্যান পেজও আছে তার। ফেসবুকে তার ফ্যানপেজের সদস্য প্রায় ১৪ হাজার । ফেসবুক তার কী উপকার করছে এ বিষয়ে তিনি বলেন, “আমরা যারা রাজনীতি করি তারা হাতে গোনা কয়েকজন মানুষ দ্বারা পরিবেষ্টিত থাকি। কিন্তু গনমানুষের ভেতরের অনুভূতির কথা জানতে ফেসবুক কাজে লাগে”।
জনতার সহজাত প্রতিক্রিয়া তাকে আলোড়িত করে ও দিক নির্দেশ করে-যোগ করেন তিনি।
সামগ্রিকভাবে না হলেও, ফেসবুকের মাধ্যমে কিছুটা হলেও হয়তো জনতার মনোভাব বুঝতে পারছেন রাজনীতিকরা।
এম.এম/এ.আর/২০.৩৮
বিভাগ: একাত্তর মঞ্চ    দেখা হয়েছে ২০১৯ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :