ব্রেকিং নিউজ:
অলিম্পিক উদ্বোধনে বৃটিশ ঐতিহ্য
খেলাযোগ ডেস্ক    জুলাই ২৭, ২০১২, শুক্রবার,     ০৪:১১:২৭

 

'ঐতিহ্যপ্রিয় জাতি' হিসেবে ব্রিটিশদের নামডাক অনেক দিনের। হয়তো সে কারণেই প্রযুক্তি নয়, ঐতিহ্যকে প্রাধান্য দিয়েই লন্ডন অলিম্পিকের
উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সাজানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। যদিও ১৮৯৬ সালে আধুনিক অলিম্পিক শুরুর পর প্রতি আসরের উদ্বোধনী আয়োজনেই গুরুত্ব পেয়েছে ঐতিহ্য। আর সঙ্গে প্রদর্শিত হয়েছে উন্নত সব প্রযুক্তির ক্যারিশমা। ব্রিটিশরা এবার অলিম্পিকের ৩০তম আসরে ইতিহাস সৃষ্টি করতে অনুষ্ঠানের থিম হিসেবে নিয়েছে শেকসপিয়রের সাহিত্যকে। ইতোমধ্যেই স্ট্রাটফোর্ডের অলিম্পিক ভিলেজসহ পুরো লন্ডন শহর সেজেছে বর্ণাঢ্য সাজে।
অনেকেই মানছেন, চীনা ক্যারিশমাকে পেছনে ফেলতে প্রযুক্তির পথে হাঁটেনি ব্রিটিশরা। হেঁটেছে তাদের যিশুপুত্র উইলিয়াম শেকসপিয়রকে সঙ্গী করে। ইংরেজি সাহিত্যের অমর স্রষ্টা এ ব্রিটিশ সাহিত্যিকের বিখ্যাত সৃষ্টি 'টেমপেস্টে'র সে বিখ্যাত উক্তি 'বি নট অ্যাফ্রেড, দ্য আইল ইজ ফুল অব নয়েজেস' অনুকরণে 'আইল অব ওয়ান্ডার' নামের এক দ্বীপের কথা দিয়েই সাজানো হয়েছে লন্ডন অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। শেকসপিয়রকে অনুপ্রেরণায় নিয়ে ইংল্যান্ডের ঐতিহ্য আর সংস্কৃতির সঙ্গে ইতিহাসের কথা জানানোর দায়িত্বটা পড়েছে অস্কারজয়ী ড্যানি বোয়েলের কাছেই।
এতকিছুর পরও ড্যানি বোয়েল কতটুকু সফল হবেন, তা নিয়ে সংশয়ে রয়েছে খোদ ব্রিটিশরা। তাই আগেভাগেই জানিয়ে দেওয়া, উদ্বোধনী অনুষ্ঠান নিয়ে বেইজিংয়ের সঙ্গে লড়াই নয়; বরং সিডনি অলিম্পিকের মতো করে কিছু একটা করা। তবে ব্রিটেনের রাস্তায় কিন্তু অলিম্পিক নিয়ে তেমন কোনো উত্তেজনাই নেই। বাঙালি নাট্যকার আবু তাহের বললেন, ব্রিটিশরা আসলে এ রকমই। জাতীয় নির্বাচন নিয়েও তাদের খুব বেশি মাথাব্যথা থাকে না।
এদিকে ইংলিশ গণমাধ্যমে রানী এলিজাবেথের অলিম্পিক উদ্বোধন ঘোষণার চেয়েও আকর্ষণীয় পর্ব হিসেবে তুলে ধরা হচ্ছে গ্রেট মোহাম্মদ আলীর নেতৃত্বে প্যারেড পর্বটি। সস্ত্রীক বেকহামও থাকছেন সে প্যারেডে। ক্রীড়াঙ্গনের বাইরের নামিদামি ব্যক্তিরাও থাকছেন স্ট্রাটফোর্ড অলিম্পিক স্টেডিয়ামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের অংশ হয়ে। এরপর রানীর উদ্বোধন ঘোষণা, ২০৫ দেশের অ্যাথলেটদের মার্চপাস্ট এসব তো থাকছেই। থাকছে আতশবাজির প্রদর্শনী।
অলিম্পিক উপলক্ষে লন্ডন শহরকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে। অলিম্পিক অতিথিদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ সব সড়কে আলাদা লেন করা হয়েছে। যানজট এড়াতে কাজ ছাড়া বাইরে না বেরিয়ে ঘরে বসে টেলিভিশনে অলিম্পিক উপভোগের জন্য টানা প্রচার চালাচ্ছে ব্রিটিশ অলিম্পিক আয়োজক কমিটি ও নিরাপত্তা সংস্থা।

এস.এম.বি/০২.৩৫
বিভাগ: খেলাযোগ   দেখা হয়েছে ৭৩৩ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :