সাকিবের ব্যাট হাসলে, হাসে বাংলাদেশ

সাকিবের ব্যাট হাসলে, হাসে পুরো বাংলাদেশ, এটা যেন এখন প্রবাদ হয়ে গেছে। ফিটনেন্স, পারফরম্যান্স সব জায়গায় বিশ্বকাপে দারুণ ছন্দে সাকিব। ব্যাট হাতে ২২ গজে শাসন করছেন বোলারদের।ওর এই প্রত্যাবর্তনের পেছনে ছিল কঠোর পরিশ্রমের গল্প।

সাকিবের ব্যাটে রানের ফোয়ারা। বিশ্বকাপের প্রথম তিন ম্যাচে এক শতক দুই হাফ সেঞ্চুরি। সেরা ছন্দে বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার।বিশ্বকাপের মঞ্চে চনমনে সাকিব যেন ২১ বছরের তরুণ। ফিটনেস, বডি ল্যাঙ্গুয়েজে যেন এক ভিন্ন সাকিব।

ফিটনেস পরিবর্তনের জন্য বেছে নিয়েছিলেন আইপিএলের মঞ্চকে। হায়দ্রাবাদের হয়ে খেলতে গিয়ে কাটানো ৪ সপ্তাহে গড়েছেন নিজেকে নতুন করে । পরিবর্তন এনেছিলেন নিজের খাদ্যাভাসে। বাড়তি মেদ ঝরাতে করেছিলেন কঠোর ফিটনেস ট্রেনিং। ২০১৮ শুরু থেকে ব্যাট হাতে দারুন ছন্দে সাকিব। এই সময়টায় নিয়মিত ব্যাট করছেন পছন্দের তিন নম্বার পজিশনে। অথচ এ জায়গাটাই পেতে তাকে ওকে লড়তে হয়েছে সতীর্থ, টিম ম্যানেজমেন্টের সাথে।

পজিশিনের সাথে উন্নতি হয়েছে ওর ব্যাটিংয়েও । ২০১৫ বিশ্বকাপের পর থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত যেখানে ব্যাট করেছেন ৩৫ গড়ে, ওয়ানডাউনে নেমে ব্যাট করেছেন ৫৩ গড়ে।

আইসিস ওডিয়াই রেংকিংয়ের সেরা অলরাউন্ডার সাকিব খেলছেন নিজের চর্তুথ বিশ্বকাপ। অভিজ্ঞ সাকিবেই তাই স্বপ্ন কোটি ভক্তের। ওর কাধে চড়েই যে বিশ্বকাপে এগিয়ে যাবে লাল সবুজের বাংলাদেশ।

Leave a comment