পানি নেই ভারতে !

অনাবৃষ্টি আর তাপদাহে পানির অভাবে ধুকছে প্রায় অর্ধেক ভারত। তীব্র খরায় শুকিয়ে গেছে চেন্নাইসহ দক্ষিণ ভারতের প্রধান সব জলাশয়। নেমে গেছে ভূগর্ভস্থ পানির স্তর। সরকারের বিশেষ সরবরাহ ব্যবস্থায়ও মেটানো যাচ্ছে না পানির চাহিদা। কাঠফাঁটা গরমে দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে যেটুকু জল মেলে তাতে চলছে শুধু জরুরি কাজ। ভারতের দক্ষিণাঞ্চল রাজ্য তামিলনাড়ু। একমাসের তীব্র খরায় মাঠ-ঘাট ফেটে চৌচির। চেন্নাইয়ের চারটি প্রধান জলাধার শুকিয়ে কাঠ। ফলে, নিদারুণ পানি সংকটে ভারতের ষষ্ঠ জনবহুল এই শহরে।

গত দুই বছরে বৃষ্টির পরিমান কমেছে। পানির সংকট দূর করতে ভূগর্ভস্থ পানির প্রবাহ সঠিকভাবে রক্ষণাবেক্ষণের বিকল্প নেই। চেন্নাইয়ের বাসিন্দা হাসানের মতো কেউবা আবার নিজ উদ্যোগে বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ করে রাখেন। তবে এখন সেই মজুদও শেষ।

এরপরও তামিলনাড়ু সরকার সাধ্যমত চেষ্টা করছে গাড়ি দিয়ে পানি সরবরাহ করার। তবে প্রতিদিন অন্তত পাঁচশ পয়েন্ট পানি চেয়ে বুকিং দেওয়া হয়। প্রতি তিন দিন অন্তর এক এক এলাকায় পানি পেলেও সরবারহের সময় তৈরী হয় আরও নাটকীয় পরিস্থিতি।

তাপমাত্রা চরমে ওঠায় প্রতিদিন হাজারও মানুষ তীব্র গরম সহ্য করে পানির জন্য ঘন্টার পর লাইনে দাঁড়িয়ে। শুধু চেন্নাই নয় ভারতজুড়ে অন্তত ষাট কোটি মানুষ পানি সংকটে ভুগছে।

পনির অভাব এত তীব্র আকার ধারণ করেছে যে চেন্নাই প্রশাসন নতুন করে কুয়া খননের মত জরুরি ব্যবস্থা গ্রহণে বাধ্য হচ্ছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় দেওয়া হয়েছে পাচ শ কোটি রুপি জরুরী সহায়তাও।

এসবের মাঝে দীর্ঘ সাত মাস পর ২০ জুনের বৃষ্টিতে কিছুটা স্বস্তী মিললেও তা যথেষ্ট নয়। নভেম্বরের আগে কোনো জলাধারই পুর্ন হবে না বলে ধারণা করা হচ্ছে।

Leave a comment