দাম বেড়েছে আমের, কিন্তু সুবিধাভোগী কে?

চাঁপাই নবাবগঞ্জে, আমের দাম বাড়লেও সেই টাকা পাচ্ছেন না চাষীরা। তারা বলছেন, আমের মৌসুমে মনিটরিং না থাকায় আড়ৎদারদের সিন্ডিকেট, কমদামে আমের বাগান কিনে রাখে। তারাই দাম বাড়িয়ে ক্রেতাদের ঠকাচ্ছেন।

ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত আমচাষী ও ব্যাপারীদের ভিড়ে মুখর চাঁপাইনবাবগঞ্জের সবচেয়ে আমের বড় বাজার কানসাট। আশেপাশের শিবগঞ্জ, রহনপুর, মল্লিকপুর, ভোলাহাট ,সদরঘাট ও তহাবাজারসহ সবকটি আমেরে বাজার এখন একই রকম জমজমাট।

চাষিরা বলছেন আমের দাম এখন বাজারে কিছুটা বাড়তি। প্রতিমন ক্ষিরসাপাত আম বিক্রি হচ্ছে তিন থেকে সাড়ে চার হাজার টাকা পর্যন্ত । এছাড়া ল্যাংড়া তিন হাজার এবং সুরমা ফজলি দুই হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

আম চাষীদের অভিযোগ আড়তদারদের কারণে বাধ্য হয়ে ৪৮ কেজি তে মণ বিক্রি করতে হচ্ছে। যে কারণে কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

তারা আরো অভিযোগ করেন মৌসুমের শুরুতে এক শ্রেণির মধ্যস্বত্বভোগী সিন্ডিকেট, কমদামে আমের বাগান কিনে ফেলায় বেশিরভাগ চাষি এবার আমের ন্যায্য দাম থেকে বঞ্চিত হয়েছেন।

চাষীরা জানান বাজারে খোলা আকাশের নিচে দীর্ঘ সময় আম থাকায় রাখার কারণে এর গুণগত নষ্ট হচ্ছে। পাশাপাশি জোর করে বেশি ওজন নেয়ার মত অব্যবস্থাপনা তো আছেই ।
যদিও আম চাষিদের এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন হাট কমিটি।আম চাষীরা আরো জানান, প্রতিটি বাজারে প্রতিদিন এক কোটি টাকা বেচাকেনা হলেও শুধু কানসাট বাজারে প্রতিদিন প্রায় ৩ কোটি টাকার আম কেনাবেচা হচ্ছে।

 

Leave a comment