সরকারি চাকরিতে ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক হচ্ছে

সরকারি চাকরিতে ঢোকার আগে মাদক আসক্তির পরীক্ষা বা ডোপ টেস্ট করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, পর্যায়ক্রমে চাকরিতে থাকা সব সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীর ডোপ টেস্ট করা হবে। পাশাপাশি রোহিঙ্গাদের মাধ্যমে ইয়াবা পাচার বন্ধ করতে না পারার জন্য মিয়ানমার সরকারের অসহযোগিতাকে দায়ী করেন মন্ত্রী।

যারা আইনের প্রয়োগের মাধ্যমে মাদকমুক্ত সমাজ গড়ার কাজ করবেন তাদেরই কেউ কেউ জড়িয়ে পড়ছেন মাদকব্যবসায় বা আসক্ত হচ্ছেন মাদকে। সম্প্রতি এমন বেশকিছু ঘটনায় ইয়াবা, ফেন্সিডিলসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য নিয়ে আটক হয়েছেন বেশ কজন সরকারি কর্মকর্তা। এমনকি পুলিশসহ বিভিন্ন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরাও।
তাই এবার সরকারি চাকরিতে নিয়োগের আগেই ডোপ টেস্ট চালু করা সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এক সংবাদ সম্মেলনে জানালেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

মাদকবিরোধী দিবসের প্রস্ততি জানাতে আয়োজিত এই সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী জানান, ভারতের সহায়তার প্রায় পঞ্চাশ শতাংশ কমেছে ফেন্সিডিলের অবৈধ চালান। ইয়াবা পাচার রোধের ব্যার্থতার জন্য মিয়ানমার সরকারের অসহযোগিতাকেই দায়ী করছেন মন্ত্রী।

এ সময় সরকারের মাদকবিরোধী বিভিন্ন কার্যক্রমের কথা তুলে ধরেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

বুধবার পালিত হবে আন্তর্জাতিক মাদকবিরোধী দিবস। এবারের প্রতিপাদ্য সুস্বাস্থ্যই সুবিচার, মাদক মুক্তির অঙ্গীকার।

 

Leave a comment