বসতঘর পেলেন ২০৮টি পরিবার

চাঁদপুরের কচুয়ায় সরকারি বসতঘর বুঝে পেলেন ২০৮টি গৃহহীন পরিবার। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ‘জমি আছে, ঘর নেই’ প্রকল্প-২ এর আওতায় এই ঘর পেয়ে সন্তোষ জানিয়েছেন সুবিধভোগীরা। প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দেশের কোন মানুষ যাতে গৃহহীন না থাকে সেটি নিশ্চিতে ধাপে ধাপে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন অব্যাহত থাকবে। চাঁদপুরের কচুয়ার আশ্রাফপুর গ্রামের সিরাজ মিয়া। ষাটোর্ধ্ব এ মানুষটির সামান্য জমি থাকলেও ঘর ছিল না। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এ আওতায় তাকে তৈরি করে দেয়া হয়েছে ১৬ ফুট দৈর্ঘ্য ও সাড়ে ১০ ফুট প্রস্থের ঘর। যেখানে পাঁচ ফুটের বারান্দা রয়েছে। সাথে রয়েছে একটি টয়লেটও। ঘর পেয়ে এখন নিজেদের নিরাপদ মনে করছেন এই বয়োবৃদ্ধ দম্পতি। সিরাজ মিয়ার মত ঘর পেয়ে খুশি আলী আজগর, মিনহাজসহ অন্য সুবিধাভোগীরাও। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা বলছেন, এ উদ্যোগ অব্যাহত থাকলে দেশে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না। ‘জমি আছে, ঘর নেই’ প্রকল্পের আওতায় ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরে কচুয়ার ২০৮টি ঘরের জন্যে একলাখ টাকা করে বরাদ্দ দেয় সরকার। প্রকল্পের আওতায় গেল অর্থবছরে চাঁদপুরের আট উপজেলায় বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল মোট ১৫শ ৬৬টি ঘর; যেগুলো পর্যায়ক্রমে হস্তান্তর করা হচ্ছে।

Leave a comment