বরগুনা কি তাহলে নয়নদের অভয়ারণ্য?

বরগুনায় সর্বোচ্চ চেষ্টা করেও দুর্বৃত্তের হাত থেকে স্বামীকে বাঁচাতে পারলেন না সদ্য বিবাহিত এক তরুণী। সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে তার স্বামী রিফাত শরীফকে (২৫) গুরুতর আহত করে। এরপর বীরদর্পে অস্ত্র উঁচিয়ে এলাকা ত্যাগ করে তারা। বুধবার (২৬ জুন) সকাল সাড়ে দশটার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের ঠিক সামনে এ ঘটনা ঘটে। আশপাশের অনেক লোক সন্ত্রাসীদের এ তাণ্ডব দেখলেও একজন ছাড়া তাদের ঠেকানোর চেষ্টা করেনি কেউ। ধারালো অস্ত্রের কোপে গুরুতর আহত রিফাতের বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু হয়।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, আয়শা আক্তার মিন্নি নামের ওই তরুণীর দুই মাস আগে রিফাত শরীফের সঙ্গে বিয়ে হয়। তবে বিয়ের পর থেকেই নয়ন নামে এক যুবক তাকে উত্ত্যক্ত করতে শুরু করে। ওই যুবক নিজেকে তরুণীর সাবেক স্বামী এবং প্রেমিক হিসেবে পরিচয় দিতে থাকে। এ ঘটনায় রিফাতের সঙ্গে নয়নের বচসা হয়। এর জের ধরে বুধবার বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে দেশীয় অস্ত্রসহ দলবলে ওঁৎ পেতে থাকে নয়ন। রিফাত ও তার স্ত্রী মিন্নি সকালে ওই পথ দিয়ে যাওয়ার সময় তারা রামদা নিয়ে রিফাতের ওপর চড়াও হয়। এ সময় মিন্নি তাদের বাধা দিতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেন। কিন্তু, তার বাধা সত্ত্বেও সন্ত্রাসীরা রিফাতের সারা শরীরে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে।

পুলিশ জানিয়েছে নয়নের নামে মাদক , ছিনতাই সহ ১০/১২ টি বিভিন্ন মামলা রয়েছে। এছাড়া তার নামে অভিযোগের শেষ নেই। এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি। কিন্তু পুলিশ সুপার বলেছেন মামলা না হলেও ঘটনা জানতে পেরে এবং সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তাদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান চালিয়েছে।

নয়নের রাজনৈতিক পরিচয় জানতে চাইলে বরগুনার প্রতিনিধি ইমরান হোসেন জানান,
” ৭/৮ বছর আগে সে ছাত্রদলের রাগনীতির সাথে যুক্ত ছিল।বর্তমানে সে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত এবং তার ২০/২৫ জন সমবয়সী পোষা যুবক রয়েছে যারা প্রত্যেকেই মাদকাসাক্ত। এমনকি মাদক চোরাকারবারি হিসেবে নয়ন জেলও খেটেছে ।

বরগুনা-১ এর সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু জানান,
” জঘণ্য ও নির্মম ঘটনা। এমন ঘটনা বরগুনায় ইতিপূর্বে ঘটে নাই। এখানে রাজনীতির কথা না মানবতার কথা। অপরাধী যেই হোক তার বিচার হবে। মামলা না হলে কি হলো। খুন হয়ে গেছে উনি মারা গেছে তো। আইনত বিচার হবে। মামলা হবে , তদন্ত হবে।”

ওয়েব সম্পাদনা : সালমা সাবিহা খুশি

Leave a comment