হলি আর্টিজানের তিন বছর

রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে ভয়াবহ জঙ্গি হামলার তিন বছর পূর্ণ হলো, আজ। ২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে, হোলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালায় বন্দুকধারী জঙ্গিরা।

ঘৃণ্য, নৃশংস সেই হামলা। যা আগে কখনো দেখেনি বাংলাদেশ। ভাবেওনি এই বদ্বীপে এমন নিষ্ঠুর হতে পারে এ দেশেরই কিছু মানুষ।

এই হামলায় দেশি-বিদেশি ২০ নাগরিক, দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ মোট ২২ জন মারা যান। যাদের মধ্যে ৯ জন ইতালির, ৭ জন জাপানি, একজন ভারতীয় এবং ৩ জন বাংলাদেশি নাগরিক। পরের দিন সকালে যৌথ বাহিনীর অভিযানে নিহত হয় পাঁচ হামলাকারী।এছাড়া চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় আরেকজন। গেল বছরের ২৩শে জুলাই জীবিত আট জঙ্গির বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দেয় পুলিশ।২৬শে নভেম্বর থেকে শুরু হয় এ মামলার বিচার প্রক্রিয়া।

কেটেছে তিন বছর, কিন্তু রয়ে গেছে হলি আর্টিজানের সেই ভয়াবহ হামলার ক্ষত। নিজেদের দক্ষতা প্রমানে একের পর এক অভিযানে সন্ত্রাসের পথে পা রাখা মানুষগুলোকে নির্মূল করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। কিন্তু কতটুকু কেটেছে শংকা? কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট বলছে, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ হামলায় যেমন আঁতে ঘা লেগেছে জঙ্গি সংগঠনগুলোর, তেমনি শ্রীলংকার চার্চে হামলার পর উৎসাহীতও হয়েছে তারা।

 

ওয়েব সম্পাদনা : সালমা সাবিহা খুশি

Leave a comment