ওয়াসা’র পানির শরবত খাওয়া যাবে না

পানির শুদ্ধতা নিয়ে ধোপে টিকল না ঢাকা ওয়াসার দাবি। ওয়াসার পানি বিতরণের ১০টি জোনের মধ্যে চারটি এবং সায়েদাবাদ ও চাঁদনিঘাট এলাকা থেকে সংগ্রহ করা পানির আটটি নমুনাতে দূষণ পেয়েছে হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত কমিটি। এসব নমুনায় ব্যাকটেরিয়া ও উচ্চমাত্রার অ্যামোনিয়া মিলেছে। এমনকি কিছু নমুনায় মিলেছে মলমূত্রেরও অস্তিত্ব।

ঢাকা ওয়াসার পানি বিতরণের ১০টি জোন, গ্রাহকদের অভিযোগের ভিত্তিতে ১০টি ঝুঁকিপূর্ণ স্থান আর দৈবচয়নের ভিত্তিতে ১০টি স্থান থেকে পানির নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষার নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। ওই আদেশের ধারাবাহিকতায় রাজধানীর মোট ৩৪টি স্থান থেকে পানির নমুনা সংগ্রহ করে তা আইসিডিডিআরবি, বুয়েট ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুজীব বিজ্ঞান বিভাগের পরীক্ষাগারে পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে সায়েদাবাদ, কাজীপাড়া, পাতলাখান লেনসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে সংগ্রহ করা আটটি নমুনায় ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া এমনকি মল-মূত্রেরও অস্তিত্ব পেয়েছে কমিটি।

রবিবার বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ বিষয়ে পরবর্তী আদেশ দেবে।

প্রতিবেদক: মিলটন আনোয়ার

ওয়েব সম্পাদনা: ধ্রুব হাসান