মাদ্রাসার শিক্ষক ভয়ংকর

এবার নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় ১২ জন ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে আটক করা হয়েছে এক মাদ্রাসা অধ্যক্ষকে। রেবের অভিযানে ওই শিক্ষকের বাসা থেকে জব্দ করা হয়েছে মোবাইল ফোন ও কম্পিউটার। সিদ্ধিরগঞ্জের পর ফতুল্লায় শিক্ষকের এমন ন্যাক্কারজনক কাজে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।

বৃহস্পতিবার কুতুবপুরের বাইতুল হুদা ক্যাডেট মাদ্রাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব। গ্রেপ্তার করা হয় অধ্যক্ষ আল আমিনকে। এ সময় ধর্ষণের কথা স্বীকার করেন সেই মাদ্রাসা শিক্ষক।

অভিযান শেষে Rab-১১ এর সিও কর্নেল কাজী শমসের উদ্দিন জানান, ২০১৮ সাল থেকে এ পর্যন্ত অধ্যক্ষ আল আমিন মাদ্রাসার ১০ থেকে ১২ জন ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। যৌন হয়রানি করে আরও কয়েক জন ছাত্র ছাত্রীকে।

আল আমিন পর্ন ভিডিও চিত্রে ছাত্রীদের ছবি বসিয়ে ব্ল্যাকমেইলও করতেন বলেও জানায় র‌্যাব।

অভিযানের পর সেই শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেন এলাকাবাসী।

এলাকার অন্য স্কুল ও মাদ্রাসাগুলোতেও এমন অভিযোগ আছে কিনা খতিয়ে দেখার আশ্বাস দেন স্থানীয় চেয়ারম্যান।

সম্প্রতি সিদ্ধিরগঞ্জের অক্সফোর্ড হাইস্কুলের শিক্ষক আরিফুল ইসলামের ধর্ষণের খবর গণমাধ্যমে প্রচারিত হলে, এই মাদ্রাসার ছাত্রীরাও শিক্ষকের যৌন নির্যাতনের কথা জানায়।

প্রতিবেদক: বুলবুল আহমেদ ও শাহরিমা বৃতি

ওয়েব সম্পাদনা: ধ্রুব হাসান