গ্যাসের দাম বাড়ানো কি সরকারকে বিপদে ফেলার চেষ্টা?

আঠারো হাজার কোটি টাকার ঘাটতি দেখিয়ে বাড়ানো হয়েছে গ্যাসের দাম। যে কারণে এই ঘাটতি; তার সমাধান না করে কেবল দাম বাড়িয়ে সমাধান খোঁজার প্রবণতাকে অযৌক্তিক বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে বৃহস্পতিবার গ্যাসের দাম বাড়া নিয়ে হাইকোর্টে দায়ের করা রিটের শুনানি হয়েছে। এতে ভোক্তা পক্ষের আইনজীবী বলেছেন, অযৌক্তিকভাবে গ্যাসের দাম বাড়িয়ে সরকারকে সংকটে ফেলার চেষ্টা হচ্ছে।

দেশীয় প্রতিষ্ঠান বাপেক্সের গ্যাস অনুসন্ধান ও উৎপাদনের অর্থায়ন নিয়ে সংকট মোকাবিলায়; ভোক্তাদের টাকায় করা হয় গ্যাস উন্নয়ন তহবিল। শর্ত ছিল দেশের টাকায় দেশের প্রতিষ্ঠান দিয়ে কম খরচে গ্যাসের অনুসন্ধান করা হবে। কিন্তু সেটি করে গ্যাসপ্রমের মতো বিদেশী কোম্পানি দিয়ে চলছে এই কাজ। খরচ হচ্ছে দেড় থেকে দ্বিগুণ। আবার সেই টাকার ৩ শতাংশ সুদও গুণতে হচ্ছে বাপেক্সকে। এসবকে অনিয়ম উল্লেখ করে গ্যাস খাতে যে ঘাটতির কথা বলা হচ্ছে তা নিয়ে প্রশ্ন ছুড়েছেন জ্বালানি বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে গ্যাসের দাম নিয়ে হাইকোর্টের শরণাপন্ন হয়েছে ভোক্তাদের সংগঠন ক্যাব। বৃহস্পতিবার হাইকোর্টে শুনানি শেষে ভোক্তা পক্ষের আইনজীবী জানান, এই খাতে চলা নানা অনিয়মের সমাধান না করে উল্টো; গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তা সৃষ্টি করা হয়েছে।

প্রতিবেদক: মুজাহিরুল হক রুমেন

ওয়েব সম্পাদনা: ধ্রুব হাসান