উচ্ছেদে গুঁড়িয়ে গেল বিটিসিএল-এর ভবন

গেলো তিনদিনে বুড়িগঙ্গা তীরে প্রায় সাড়ে তিনশো অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে বিআইডাব্লিউটিএ। গেলো জানুয়ারির অভিযানের পরও যেসব দখলদারদের উচ্ছেদ করা যায়নি বৃহষ্পতিবার আবারও তাদের বিরুদ্ধে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমান আদালত।তিনতলা ভবন থেকে শুরু করে কাঁচাপাকা মিলিয়ে অর্ধশত স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। শনিবার খোলামুড়া ঘাটে স্থায়ী পিলার বসানোর মধ্য দিয়ে শুরু হবে পরবর্তী ধাপের কার্যক্রম।

কামরাঙ্গীচরের খোলামুড়া। পাঁচ মাস এমন দুরন্তপনার কোন সুযোগ ছিলোনা এখানকার কিশোরদের। কারণ উচ্চ ভবন আর কারখানায় ঘেরা ছিলো এই ঘাট। গেলো ২৯ জানুয়ারির উচ্ছেদ অভিযানের পর পাল্টে গেছে সেই চিত্র।

বৃহষ্পতিবার সকাল থেকে এখানে চতুর্থ ধাপের উচ্ছেদ অভিযান শুরু করে বিআইডাব্লিউটিএ। আগের অভিযানের পরও যারা দখল সরিয়ে নেয়নি; এবারের অভিযান ছিলো তাদের বিরুদ্ধে। এরমধ্যে অধিকাংশ দখলদার তাদের স্থাপনা সরিয়ে নিলেও; অটুট ছিলো বিটিসিএলের এই তিনতলা ভবন। এবার গুড়িয়ে দেয়া হয় সেটিও।

বিআইডাব্লিউটিএ বলছে, শেষ ধাপের এই অভিযানে বুড়িগঙ্গার দুই পাড়ই দখলমুক্ত করা হবে।

শনিবার খোলামুড়া ঘাটে স্থায়ী পিলার বসানোর মধ্য দিয়ে পরবর্তী কার্যক্রম শুরু করবে নদী বন্দর কর্তৃপক্ষ।

প্রতিবেদক: সাজিদ হিটলার

ওয়েব সম্পাদনা: সাজিদ হিটলার