বিসিআইএম করিডোর বাণিজ্য দুয়ার খুলবে- প্রধানমন্ত্রী

প্রতিবেশী দেশের সাথে সংযোগকে সব সময় গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পাঁচ দিনের চীন সফরে শুক্রবার সংবাদ মাধ্যম চায়না টোয়েন্টি ফোর টেলিভিশনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে একথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। বাংলাদেশ, চীন, ভারত এবং মিয়ানমারের মধ্যে বিসিআইএম অর্থনৈতিক করিডোর- বাণিজ্য এবং যোগাযোগের দুয়ার খুলে দেবে বলেও মনে করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাক্ষাৎকারে বলেন,  ১৯৯৬ সালে প্রথম প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর, প্রথম অফিশিয়াল বিদেশ সফর করি চীনেই। চীনের সাথে আমাদের খুব ভালো সম্পর্ক। আমার বাবা ১৯৫২ সালে পিস কনফারেন্সে চীন সফর করেন। তারপর আবার ১৯৫৭ সালে। আর আজ আমি এখানে। চীনে আমাদের বন্ধু দেশ। আমন্ত্রণ জানানোয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই।

চীন বাংলাদেশের বিভিন্ন অবকাঠামো তৈরিতে অনেক বিনিয়োগ করছে উল্ল্যেখ করে জানতে চাওয়া হয়, এইসব বিনিয়োগ ছাড়া বিশেষ করে সড়ক নির্মাণ ও কাঠামো তৈরিতে কিভাবে আরও সহযোগিতা বাড়ানো যায়?

প্রধানমন্ত্রী জানান,  সব প্রতিবেশি দেশের সাথে সংযোগকে আমি সব সময় গুরুত্ব দেই। সত্যিই চীন আমাদের সাথে সহযোগিতামূলক সম্পর্ক রেখেছে। অনেক চীনা কোম্পানি আমাদের গুরুত্বপূর্ণ অনেক প্রকল্পে কাজ করেছে, করছে। বাংলাদেশ, চীন, ভারত ও মিয়ানমারের মধ্যে আমরা বিসিআইএম অর্থনৈতিক করিডোর চুক্তি করেছি। আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্য ও যোগাযোগের প্রসার ঘটাতে এটি একটি দুয়ার খুলে দেবে। সেই সাথে ট্রান্স এশিয়ান হাইওয়ে এবং রেলওয়ের জন্যও আমাদের যোগাযোগের উন্নয়ন ঘটানো হচ্ছে।