গ্যাসের দাম বাড়ানোর অজুহাত এলএনজি এখনো আমদানিই হয়নি!

যে গ্যাস এখনও আমদানি হয়নি, সেই গ্যাসের দাম বাড়ানোকে এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন আইনের পরিপন্থি বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। কমিশন চেয়ারম্যানও স্বীকার করেছেন কয়েক মাস পর যে গ্যাস আমদানি করা হবে তার হিসাব করেই নতুন করে গ্যাসের দাম নির্ধারণ হয়েছে। কমিশনের এমন সিদ্ধান্তকে প্রতারণা বলছেন জ্বালানী খাতের বিশেষজ্ঞরা।

গত ৩০ জুন সব ধরনের গ্যাসের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত দেয় এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন। এবারের দাম বাড়ার কারণ হিসেবে কমিশন তরল করা প্রাকৃতিক গ্যাস-এলএনজি আমদানিতে দাম সমন্বয়ের কথা জানায়। যে গ্যাস এখনও আমদানি করা হয়নি। আগামী কয়েক মাসের মধ্যে আমদানি করা গ্যাস থেকে পাওয়া যাবে প্রায় সাড়ে আটশ মিলিয়ন ঘনফুট। আর সে জন্যই আগাম দাম নির্ধারণের কথা জানান কমিশন চেয়ারম্যান।

ভবিষ্যতে যে গ্যাস ভোক্তা পাবেন এখনই তার দাম ভোক্তার কাছ থেকে আদায় করার এমন ঘটনাকে কমিশন আইনের পরিপন্থী বলছেন বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক শামসুল আলম।

বিতরন কোম্পানিগুলোর নানা অনিয়ম ও দুর্নীতি বন্ধের কোন উদ্যোগ না নিয়ে ভোক্তাদের পকেট থেকে দাম সমন্বয়নের এই উদ্যোগ বরং গ্যাস খাতের বিশৃঙ্খলা আরও বাড়বে বলেও শঙ্কা জানান এই বিশেষজ্ঞ।

প্রতিবেদন: মুজাহিরুল হক রুমেন

ওয়েব সম্পাদনা: ধ্রুব হাসান