প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ জিতলো ইংল্যান্ড

মহাকাব্যিক এক ফাইনাল দেখেছে ক্রিকেটবিশ্ব। পরতে পরতে নাটকীয়তায় মোড়া ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জয় পেয়েছে ইংল্যান্ড, প্রথমবারের মতো জিতলো বিশ্বকাপ। নির্ধারিত ওভারে ম্যাচ টাই হলে একই পরিনতি হয় সুপার ওভারেও। ফলে ইনিংসে সর্বাধিক বাউন্ডারি মারা দল হিসেবে চ্যাম্পিয়ন হয় ইংলিশরা। আর ভাগ্যকে মেনে নিয়ে টানা দুইবার ফাইনাল থেকে বিদায় নিতে হয়েছে নিউজিল্যান্ডকে।

ক্রিকেটের সব রেমাঞ্চ যেন উপচে পড়েছে লর্ডসের হোম অফ ক্রিকেটে। উত্তেজনার সীমা ছাড়িয়ে চরম নাটকীয়তাও যেখানে হার মানে,মহাকাব্যিক এক ফাইনাল দেখেছে ক্রিকেট বিশ্ব। যেখানে ইংল্যান্ড চ্যাম্পিয়ন হলেও হারেনি নিউজিল্যান্ড।

এমন ঐতিহাসিক এক ম্যাচই উপহার দিয়েছে বিশ্বকাপের ফাইনাল। নাটকের শুরু ম্যাচের শেষ ওভারে। জয়ের জন্য শেষ ৩ বলে ইংল্যান্ডের দরকার ৯ রান। কিন্তু দুই রান নিতে গিয়ে স্টোকসের ব্যাটে লেগে অপ্রত্যাশিত চার। স্কোর বোর্ডে যোগ হয়েছে ৬ রান। শেষ দুই বলে ২ রান নিলে ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে।

নাটকের শেষ দৃশ্যেও রোমাঞ্চে ঠাসা। আগে ব্যাট করা ইংল্যান্ডের ১৫ রান পাড়ি দিতে গিয়ে সুপার ওভারটাও টাই হয়। ফলে আইসিসির তৃতীয় নিয়ম ইনিংসে সর্বোচ্চ বাউন্ডারি দল হিসেবে চ্যাম্পিয়ন হয় ইংল্যান্ড। ভাগ্যের সিকি ধরে অধরা স্বপ্ন, স্বপ্নিল মুহুর্ত, আজন্ম অপেক্ষা, সবটাই আজ বাস্তবতায় মিলিয়ে নেয় প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ জেতা ইংল্যান্ড। আর ভাগ্য দেবির বিমুখতায় নিরব দর্শক হয়ে থাকা ছাড়া আর কিছুই করার ছিলোনা নিউজিল্যান্ডের।

তার আগে লর্ডসের গল্পটা ছিলো লো স্কোরিং ম্যাচের। আগে ব্যাট করে হেনরি নিকোলসের ফিফটিতে ৮ উইকেটে ২৪১ রানের পুজি গড়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনাল খেলা নিউজিল্যান্ড। জবাবে ইংলিশরা ১শ রানের আগে ৪ উইকেট হারালেও বাটলার-স্টোকসের ব্যাটে চড়ে শেষ পর্যন্ত লড়াই করে।

আর শেষের গল্পটাতো শুরুতেই জানা হয়েছে। রোমাঞ্চকর সুপার ওভারে নিউজিল্যান্ডে হারিয়ে প্রথমবারেমতো এই ট্রফির জিতেছে ইংল্যান্ড। ৪৪ বছরের টেস্টায় অবশেষে ডাক শুনেছে বিধাতা। আসর শুরুর আগে স্বাগতিকদের সেই আকাঙ্খাটাই যেন সত্যি হলো- ওয়ার্ল্ড কাপ কামিং হোম।

প্রতিবেদক : এহতেসাম সবুজ

ওয়েব সম্পাদনা : সালমা সাবিহা খুশি