টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে রোহিঙ্গাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত

ক্সবাজারের টেকনাফে বিজিবির সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক রোহিঙ্গাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এ সময় তিন বিজিবি সদস্য আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাতে টেকনাফের হ্নীলা ইউপির লেদায় নাফনদীর কাছে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন মো. কামাল ও মো. হাবিবুর রহমান। কামাল উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ব্লক ই, ১১ নম্বর ক্যাম্পের বাসিন্দা মো. ইসলামের ছেলে। নিহত হাবিবুর রহমান কোয়াইক্যংয়ের মহেশখালিয়াপাড়ার আবু শামার ছেলে। এছাড়া গোলাগুলিতে আহত বিজিবিরা হলেন শফিকুর রহমান, উজ্জ্বল হোসেন ও ইমরান হোসেন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে বুধবার সকালে টেকনাফের ২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান সংবাদ সম্মেলন করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ২ বিজিবি ব্যাটালিয়ানের অপারেশন অফিসার রোবাইয়াৎ কবির ও স্টাফ অফিসার নুরুল হুদা।

লে. কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান বলেন, রাতে টেকনাফের হ্নীলা ইউপির লেদায় ইয়াবার একটি বড় চালান মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে ঢুকবে বলে তথ্য ছিলো। পরে বিজিবির একটি বিশেষ দল ওই এলাকায় আগে থেকে অবস্থান করে। এমন সময় কয়েকজনকে ওই এলাকায় দেখে বিজিবির সন্দেহ হয়। তখন তাদের থামার সংকেত দিলে তারা বিজিবির ওপর হামলা চালায়। এ সময় বিজিবি তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে।

গোলাগুলি শেষে এলাকা তল্লাশি করে নৌকা থেকে এক লাখ ইয়াবা, দুইটি এলজি, তিনটি কার্তুজ ও ধারালো কিরিচসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দুই ব্যক্তিকে উদ্ধার করা হয়। তাদেরকে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাদেরকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করতে বলেন। কক্সবাজার নেয়ার পথেই তারা মারা যান। মরদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা আছে।

টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মো. জাকারিয়া মাহমুদ বলেন, গুলিবিদ্ধ দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ার তাদের কক্সবাজার স্থানান্তরের পরামর্শ দেয়া হয়। তাদের দেহে একাধিক গুলির চিহ্ন দেখা গেছে।

ওয়েব সম্পাদনা : জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়