ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রীকে বাড়ি থেকে বের করে দেন স্ত্রী!

ব্রিটেনের নতুন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে পরকীয়ার কারণে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছিলেন তার সাবেক স্ত্রী। বর্তমানে তার চেয়ে ২৫ বছরের ছোট এক তরুণীর সঙ্গে বরিস লিভ টুগেদার করছেন। খবর- এক্সপ্রেস।

এদিকে বরিসের সাবেক স্ত্রী মারিনা হুইলারের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক বিচ্ছেদ হয়নি। তবে ধারনা করা হচ্ছে, লিভ টুগেদার করা ক্যারি সাইমন্ড নামে ওই তরুণীকেই ডাউনিং স্ট্রিটে জায়গা দেবেন বরিস।

দেশটির সংবাদ মাধ্যম এক্সপ্রেস জানিয়েছে, প্রথম স্ত্রী অ্যালেগ্রা মসটিনের সঙ্গে বিচ্ছেদের ১৩ দিনের মাথায় মারিনা হুইলারকে বিয়ে করেন বরিস। ২৬ বছরের ওই সংসারে তাদের চারটি সন্তান রয়েছে।

এদিকে ২০০৪ সালে সাংবাদিক পেট্রোনেলা ওয়াটের সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে জড়ান বরিস। এই কারণে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেন মারিনা। পরে বিষয়টি মিটমাট হয়ে যায়। কিন্তু ২০১০ সালে প্রতারণার অভিযোগ এনে বরিসের সঙ্গে সম্পর্কের ইতি টানেন মারিনা।

অন্যদিকে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর থেকেই বরিসক নিয়ে সমালোচকরা মেতে উঠেছেন। অনেকে তাকে ব্রিটেনের ট্রাম্প হিসেবে অভিহিত করছেন। নির্বাচনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বরিসকে প্রকাশ্যে সমর্থন দেয়ায়ও সমালোচনা কম হয়নি।

প্রসঙ্গত, থেরেসা মে’র উত্তরসূরী হিসেবে কনজারভেটিভ দলের প্রধান হওয়ার নির্বাচনী লড়াইয়ে বরিস সদস্যদের সরাসরি ভোটে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন। এতে প্রতিদ্বন্দ্বী জেরেমি হান্টকে বড় ব্যবধানে হারান।

ওয়েব সম্পাদনা : জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়