নতুন করে পানি বাড়ছে যমুনা ও ধরলায়

নতুন করে পানি বাড়ছে যমুনা ও ধরলায়। আর এতে জামালপুর সিরাজগঞ্জ গাইবান্ধা ও কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। পানি কমে যাওয়ার ওইসব এলাকায় যারা বাড়ি ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তারা আবারো আটকে পড়েছে আশ্রয়কেন্দ্রে এবং উঁচু বাঁধে।

জামালপুরের গত ২৪ ঘন্টায় যমুনার পানি বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে ১০ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদ সীমার ৫৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে বইছে। যমুনার পানি বেড়ে আবারো ডুবে গেছে বসতবাড়ি ও রাস্তাঘাট। বন্যাকবলিত এলাকায় খাদ্য, বিশুদ্ধ পানি ও গো খাদ্যের সংকট দেখা দিয়েছে।

যমুনা নদীর পানি সিরাজগঞ্জে পয়েন্টে বিপদ সীমার ১২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। নতুন করে পানি বাড়ায় ঘরে ফিরতে পারছে না লোকজন। সবচেয়ে দুর্ভোগে আছে বাঁধের ওপর যারা আশ্রয় নেয়া ৩০ থেকে ৪০ হাজার মানুষ। যমুনার প্রবল স্রোতে ভাঙনের মুখে পড়েছে চৌহালী উপজেলার অন্তত ১০টি গ্রাম।

গাইবান্ধায় গত তিন দিনে ব্রহ্মপুত্রের পানি ফুলছড়া পয়েন্টে বেড়েছে ২২ সেন্টিমিটার। আর ঘাঘট নদী শহরের ব্রিজ রোড পয়েন্টে বেড়েছে ১৯ সেমি। জেলার ১৮৪ টি আশ্রয়কেন্দ্র এবং উঁচু বাঁধে আশ্রয় নেয়া ২লাখ মানুষ রতুন করে বিপদগ্রস্ত হয়েছে।

কুড়িগ্রামে বন্যার কমতে না কমতেই ধরলা ও ব্রহ্মপুত্র নদের পানি বেড়ে বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। দুর্গত এলাকায় বিশুদ্ধ পানি আর শুকনো খাবারসহ গো-খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে।

মানিকগঞ্জে যমুনার পানি শুক্রবার দুপুরে আরিচা পয়েন্টে বিপদসীমার ২৩ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে বইছে। রয়েছে প্রবল স্রোত। তবে পানি সরে গেছে নিচু এলাকা থেকে।

প্রতিবেদক: শিল্পী মহলানবীশ
ওয়েব সম্পাদনা: ধ্রুব হাসান