ব্রেকিং নিউজ:
এবারে জমি দখলের অভিযোগ হলমার্কের বিরুদ্ধে
নিউজ ডেস্ক    সেপ্টেম্বর ০৬, ২০১২, বৃহস্পতিবার,     ০৪:৩২:৫৬

 

শুধু ব্যাংক থেকে অর্থ লোপাট নয় এবার সাধারণ মানুষের জমি দখল করার অভিযোগ উঠেছে হলমার্কের বিরুোদ্ধ। সাভারে হেমায়েতপুর হলমার্কের দখলে আড়াইশ একর জমির মধ্যে রয়েছে সরকারি খাস জমি,এমনকি অর্পিত সম্পত্তিও।
দখল হয়ে যাওয়া জমির মালিকদের একজন বাবর হোসোইন জানান, তার বাবা ১৯৭৮ সালে জনতা হাউজিং থেকে জমিটি কিনেছেন। ১৯৮১ সালে জনতা হাউজিং প্লটটি হস্তান্তর করে। তারপর থেকেই ৩১ বছর ধরে তারা আছেন সেখানে। কিন্তু ২০১১ সালে হঠাৎ করেই তারা জানতে পারেন তাদের জমিটি হলমার্ক কিনে নিয়েছে। কিন্তু কার কাছ থেকে কিনেছে কিছুই তারা জানেন না।
এমন অনেক লোকের জমি দখল করে গড়ে উঠেছে হলমার্ক গ্রুপের ফ্যাক্টরী। শুধু তাই নয় ভুয়া দলিল দিয়ে ব্যাংক থেকে ঋণ নেয়ার অভিযোগ করেছেন অনেক ভুক্তভোগি। হেমায়েতপুরে যে আড়াইশ একর জমির উপর গড়ে উঠেছে হলামার্ক গ্রুপ তার মাঝে রয়েছে সরকারী খাস জমি আছে অর্পিত সম্পত্তিও। হলমার্কে ঢুকতেই বিশাল যে গেট আর রাস্তা তাও সরকারী জায়গার উপরে। হলমার্ক কর্তৃপক্ষ বলছে, এ রাস্তা সকলের জন্য তারা কেবল উন্নয়ন করেছে । কিন্তু দেয়াল দিয়ে ঘিরে রাখা হয়েছে রাস্তাটি।
অবশ্য হলমার্ক কর্তৃপক্ষ বলছে তারা আইনি প্রক্রিয়ায় জমি কিনেছে। আর সরকারি জমি লীজ নেয়ার কথা বললেও, সাভার এসি ল্যান্ড বলছেন তারা এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না।
সরকারি খাস জমি, অপির্ত সম্পত্তি আর মানুষের জমি দখল করে নেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে হলমার্কের গ্রুপ জিএম শামীম আল মামুন জানায়,“খাস জমির লীজের জন্যও তারা আবেদন করেছে”।
কিন্তু উপজেলা ভুমি কর্মকর্তা জানিয়েছেন অন্য কথা। খাস জমির উপর তৈরী করা গেট ভাঙ্গতে গিয়ে সরকারি কর্মকর্তা হলমার্ক গ্রুপের কাছে লাঞ্চিত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন, উপজেলা ভুমি কর্মকর্তা। খাস জমি লীজের বিষয়েও কিছুই জানেন না তারা।
নতুন শিল্প উদ্বোধনের সময় মে মাসে শিল্প এলাকা ঘোষনা করে হলমার্ক। পরিবেশ আন্দোলন পবার করা এক রিটের প্রক্ষিতে ৩০ জুলাই জমি দখল বন্ধ আর জলাধার ভরাট করে শিল্প না করার জন্য হাইকোর্ট থেকে স্থগিতাদেশ দেয়া হয় ৩০ জুলাই ।

এস.ডি/এ.আর/১৬৩২






বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৮৯১ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :