ব্রেকিং নিউজ:
হালদা নদীতে দুষিত তেল;হুমকিতে মাছের প্রজনন
হোসেন সোহেল    সেপ্টেম্বর ০৬, ২০১২, বৃহস্পতিবার,     ১২:১৬:৪০

 

চট্টগ্রামের হালদা নদীতে ভাসছে হাজার হাজার লিটার দুষিত তেল। যে কারণে আগামীতে এই নদীতে আর মাছের পোনা উৎপাদন হবে কীনা তা নিয়ে শংকায় আছেন বিশেষজ্ঞরা। অথচ বাংলাদেশের এই নদী সারা পৃথিবীতে কার্প জাতীয় মাছের প্রজনন ক্ষেত্র হিসাবে পরিচিত ।
পরিবেশ অধিদপ্তরের কোন ছাড়পত্র ছাড়াই আইন লংঘন করে চট্রগ্রামের হাটহাজরীতে গড়ে উঠেছে ‘পিকিং পাওয়ার প্লান্ট’ নামের একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র। আটমাস আগে নির্মিত এ প্লান্ট থেকে গত ১১ এপ্রিল ১৬০০ লিটার বিষাক্ত তেল ফেলে দেয়া হয় চাংখালি খালে। প্রতিদিন একলক্ষ লিটার ফার্নিস অয়েলে পরিচালিত এ প্লান্ট থেকে বিষাক্ত তেলের বর্জ্য হালদা নদীতে ছড়িয়ে পড়ে।
ভয়াবহ এ সংবাদে পরিবেশ অধিদপ্তরের এনফোর্সমেন্ট বিভাগ পিকিং পাওয়ার প্লান্টকে দশ লক্ষ টাকা জরিমানা করলেও বিষাক্ত তেল ছড়ানো বন্ধ হয়নি হালদাতে। অন্যদিকে পরিবেশ অধিদপ্তরের জরিমানার ১০ লক্ষ টাকাও পাওয়ার প্লান্টের আবেদনের ভিত্তিতে মওকুফ হয়ে যায়।। মওকুফের সিন্ধান্ত কেন এলো জানতে চাইলে মুখ খোলেনি পরিবেশ অধিদপ্তর।
এখনো একইভাবে বিষাক্ত তেলের বিষক্রিয়ায় হালদা নদীর ভয়াবহ পরিবেশ বিপর্যয় নিয়মিতই ঘটেই চলেছে।
হালদার জেলেরা জানিয়েছে, বিষাক্ত তেলের বিষক্রিয়ায় মা-মাছ রেনু ছাড়লেও কোটি কোটি রেনু পোনা বাঁচাতে ব্যর্থ হচ্ছে তারা।
এক কেজি রেনুতে প্রায় ২০ লক্ষ মাছের জন্ম হয় অথচ হালদার পানিতে কোটি কোটি পোনা মারা পড়ে। এটা মাছের ভবিষ্যত বংশ বিস্তারের জন্য হুমকি বলেও জানিয়েছেন মৎস বিশেষজ্ঞরা।
এইচ.এস/এস.এম.বি/০৫.৫০
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ১৪৪৫ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :