ব্রেকিং নিউজ:
যবিপ্রবি বন্ধ,ধর্মঘটে অচল দক্ষিনাঞ্চল
নিউজ ডেস্ক    সেপ্টেম্বর ১২, ২০১২, বুধবার,     ০১:১৬:০০

 

সড়ক দুর্ঘটনায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু নিয়ে টানা সাত দিন মুখোমুখি অবস্থানে আছে পরিবহন শ্রমিক এবং যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সাত দিন ধরেই ক্লাস হচ্ছে না বিশ্ববিদ্যালয়ে। এদিকে যশোরের চারটি রুটেও তৃতীয় দিনের মত পরিবহন ধর্মঘট চলছে। এ অবস্হায় দুর্ভোগ বেড়েছে সাধারণ মানুষের।
পাঁচ সেপ্টেম্বর যশোর-ঝিনাইদহ সড়কের শানতলায় গড়াই পরিবহনের একটি বাসের ধাক্কায় সুমন ও শশি নামে যবিপ্রবির দুই শিক্ষার্থী মারা যায়। এর দুইদিন পর সাত সেপ্টেম্বর এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণসহ পাঁচ দফা দাবিতে ছাত্ররা প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করে এবং জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দেয়। কিন্তু দাবির পূরণ না হওয়ায় রোববার সড়ক অবরোধ করে কয়েকটি বাস ভাংচুর করে শিক্ষার্থীরা।
এদিকে সড়কে বাস ভাংচুরের প্রতিবাদে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা সোমবার থেকে যশোর-ঝিনাইদহসহ মোট পাঁচটি রুটে সবধরণের যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। এরফলে উত্তরাঞ্চল ছাড়াও যশোরের চৌগাছা, ঝিনাইদহ, কালীগঞ্জ, কোটচাঁদপুর, মহেশপুর, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, কুষ্টিয়া জেলার সঙ্গে খুলনাসহ দক্ষিণাঞ্চলের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। আগামী শুক্রবার পর্যন্ত এই ধর্মঘট চলবে বলে জানিয়েছেন মালিক-শ্রমিক নেতারা। লাগাতার ধর্মঘটের কারণে চরম বিপাকে পড়েছেন এসব রুটের যাত্রীরা।
শুধু যাত্রীরাই না, শিক্ষার্থীদের মনেও স্বস্তি নেই। টানা সাত দিনেরও বেশি ক্লাস হচ্ছে না যবিপ্রবিতে। শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে তারা এখন গ্রেফতার আতংকে আছেন। অবশ্য জেলা প্রশাসক মোস্তাফিজুর রহমান আশ্বাস দিয়ে বলেছেন, তারা সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করছেন। আর সাধারণ মানুষ মনে করছেন সড়কে পরিবহন চালকদের সাবধানে গাড়ী চালা উচিৎ। তেমনি যে কোন সম্পত্তি ভাংচুরও বন্ধ হওয়া উচিত। তবে সবকিছুর আগে জরুরি দুই পক্ষের মধ্যে সমঝোতা।
এফ.এল/এস.এম.বি/০১.২০

বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৬৭৫ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :