ব্রেকিং নিউজ:
মন্ত্রিসভায় না এসে তাঁরা রাজনীতিকে রোমাঞ্চিত করেছেন: সুরঞ্জিত
নিউজ ডেস্ক    সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১২, শনিবার,     ১০:০১:১০

 

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেছেন, দেশের প্রবীণ দুই রাজনীতিবিদ তোফায়েল আহমেদ ও রাশেদ খান মেননের নতুন মন্ত্রিসভায় যোগ না দেবার ঘটনা ছিল তাদের একান্ত ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত এবং এর মধ্য দিয়ে তারা রাজনীতিতে নতুন রোমাঞ্চ যোগ করেছেন আর প্রমাণ করেছেন,রাজনীতি বড় বিচিত্র।
শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন, “দলের একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা ও মহাজোটর শরিক দলের সভাপতি মন্ত্রিসভায় যোগ না দেয়ায় সাম্প্রতিক রাজনীতিতে নতুন সমীকরণের জন্ম দিয়েছে, রোমাঞ্চকর হয়ে উঠেছে রাজনীতি । এ বিষয়ে আমার কিছু বলার নেই। এটা তাদের ব্যক্তিগত ও রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত”।
তবে ভবিষ্যতে এই সমীকরণের সফল সমাপ্তি হবে এমনটা আশা করে সুরঞ্জিত আরো বলেন, “এটা নতুন রাজনীতির নতুন সমীকরণ। এতে শঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। এটা সাংবিধানিক প্রক্রিয়া এবং গণতান্ত্রিকভাবেই এর সফল সমাপ্তি ঘটবে”।
আওয়ামী লীগ শিল্পীগোষ্ঠী ঢাকা জেলা শাখা আয়োজিত “বিএনপি জামায়াতের অশুভ রাজনীতি আমাদের করণীয়” শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সুরঞ্জিত বলেন, ২১ আগস্ট ঘৃণিত চক্রান্তের মাধ্যমে বিরোধী দল আওয়ামী লীগকে নিশ্চিহ্ন করা এবং শেখ হাসিনাকে হত্যার প্রচেষ্টা ও দশ ট্রাক অস্ত্র মামলার বিচার শুরু হয়েছে। কোন ষড়যন্ত্র করে এ বিচার বানচাল করা যাবে না।
দেশকে সাংবিধানিকভাবে অস্থিতিশীল করার যে কোন অপচেষ্টা ব্যর্থ হবে বলে মন্তব্য করে সুরঞ্জিত বলেন, জনগণের ক্ষমতায়নে আমরা বিশ্বাসী। জনগণই সকল ক্ষমতার অধিকারী। স্বাধীনতা বিরোধীদের সাথে এখানেই আমাদের তফাৎ।
বিএনপি জামায়াত সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, তাদের শাসনামলে দেশে জঙ্গিবাদের উত্থান ও সাম্প্রদায়িক-উগ্রবাদী রাজনীতি চালু হয়। সারা দেশে একযোগে বোমা হামলা, মানুষ হত্যা সব মিলে একটি উগ্রবাদের রাজনীতির সংস্কৃতি চালু করা হয়।
তিনি বলেন, আমরা একটি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন নিয়ে স্বাধীনতা যুদ্ধ করেছিলাম। স্বাধীনতার পর সেই আলোকেই সংবিধান প্রণয়ন করা হয়। মাঝখানে স্বাথীনতা বিরোধীরা ক্ষমতায় এসে সংবিধান ক্ষত-বিক্ষত করেছে। আমরা আবার ৭২’র সংবিধানে ফিরে যেতে সক্ষম হয়েছি।
সংগঠনের ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি হুমায়ন কবির মিজির সভাপতিত্বে সভায় ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফয়েজ উদ্দিন মিয়া, আওয়ামী শিল্পী গোষ্ঠীর সভাপতি সালাউদ্দীন বাদল, জনতা ব্যাংকের পরিচালক বলরাম পোদ্দার প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এম. এস./ ১৯.১৫
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৩৪৭ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :