ব্রেকিং নিউজ:
শালবন কেটে ‘পূর্বাচল নতুন শহর’ করবে রাজউক
হোসেন সোহেল    সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১২, রবিবার,     ০১:৩৬:২০

 

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ উপেক্ষা করে গাজীপুরে ১৬'শো একর ঘন শালবন কেটে ফেলার প্রস্তুতি নিয়েছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-রাজউক। পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ছাড়াই ‘পূর্বাচল নতুন শহর’ নামের এই প্রকল্পের কাজ এগিয়ে চলছে। স্থানীয় বাসিন্দারা বলেছেন এই প্রকল্প তারা হতে দেবে না। আর পরিবেশবিদরা মনে করেন বন ধ্বংস করে এই প্রকল্প হলে তা হবে আত্মঘাতী সিদ্বান্ত।
রাজউকের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে ঘন এই শালবনের অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাবে। ঢাকার পাশে যে কয়েকটি জায়গায় শালবন আছে তার মধ্যে বড়কাউ ও পারাবার্তা মৌজা অন্যতম। এখানকার ১৬’শো একর জমিতে রাজউক ‘পূর্বাচল নতুন শহর’ নামে একটি প্রকল্প তৈরি করতে চায়। তবে বন ও কৃষি জমির উপর নির্ভরশীল গ্রামবাসী এ প্রকল্পের বিরোধীতা করেছে। তারা বলছে এখানে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে তাদের অনেক ক্ষতি হবে। এতে এই এলাকার কৃষি জমির পরিমান কমে যাবে। ফলে এখানে খাদ্য সংকট দেখা দেবে।
চলতি বছর জানুয়ারিতে এলাকাবাসীর সাথে সাক্ষাতে প্রধানমন্ত্রী বিষয়টি জানার পর রাজউককে ‘বন ধ্বংস করা যাবে না’ এই মর্মে একটি অনুশাসনপত্র পাঠান। তবে এরপরও বন কাটার প্রস্তুতি শেষ করেছে রাজউক। আর এখনও এই প্রকল্পের পক্ষে কথা বলছেন রাজউক চেয়ারম্যান।
২০১০ সালের ডিসেম্বরে রাজউকের একটি জরিপে দুই মৌজার ১৬০০ একর জমিতে প্রায় ৭০ ভাগ কৃষিজমি ও বন থাকার কথা বলা হয়েছে। আর পরিবেশ আইনজীবি রেজওয়ানা হাসান বলেছেন, এখানে এ প্রকল্প করা হলে তা ঢাকাবাসীর জন্যই আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত হবে। তিনি আরও বলেন, কৃষকদের কাজ বন্ধ হবে, জলাভূমী নষ্ট হবে, যে পরিমান ফ্ল্যাট হবে তাতে বিপুল পরিমান মানুষের বসবাসের জন্য পর্যাপ্ত জায়গা তৈরী করা যাবেনা। শুধু মুষ্টিমেয় লোকের স্বার্থ উদ্ধারের পথ করে দিতেই এ ব্যবস্হা করা হয়েছে। এদিকে পরিবেশ অধিদপ্তর জানিয়েছে পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের জন্য কোন ছাড়পত্র তারা দেননি।
এইচ.এস/এস.এম.বি/০১.০০
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ১৫৬১ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :