ব্রেকিং নিউজ:
ম্যাককালামের শতকে চাপা পড়ে বাংলাদেশ হারলো ৫৯ রানে
নিউজ ডেস্ক    সেপ্টেম্বর ২১, ২০১২, শুক্রবার,     ১১:৩৬:৩৬

 

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের কাছে ৫৯ রানের বড় ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ।
টস হেরে ব্যাট করতে নেমে উইকেটকিপার ব্রেন্ডন ম্যাককালামের মারমুখী ১২৩ রানের উপর ভর করে কিউইরা করেছিল ৩ উইকেটে ১৯১ রান। জবাবে ২০ ওভার শেষে বাংলাদেশ সংগ্রহ করতে পেরেছে ৮ উইকেটে মাত্র ১৩২।
শুক্রবারের প্রথম খেলায় টস জিতেও হয়তো অলৌকিক কিছুর আশায় পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামের সবুজ উইকেটে নিউজিল্যান্ডকে আগে ব্যাটিং করতে পাঠায় টাইগার অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। অথচ পিচ রিপোর্টে ওয়াসিম আকরাম বলেছিলেন, “যেহেতু উইকেটে ঘাস আছে, আছে ফাটলও; তাই সুবিধা পাবেন সিমার-স্পিনার সবাই”। কাজেই যে দল টস জিতবে, তাদেরই ব্যাটিং নেয়া উচিত, এমন পরামর্শ ছিল এই ক্রিকেট ভাষ্যকার ও বিশ্লেষকের। কিন্তু উল্টো পথে হাঁটলেন মুশফিক- এমনকি এই মাঠে আগে ব্যাটিং নেয়া দলের ম্যাচ জেতার শতভাগ রেকর্ডকেও আমলে আনলেন না।
টস জিতে ফিল্ডিং নেয়ার এ সিদ্ধান্ত ভুল না ঠিক তা বোঝা যায়নি তখনো -দলীয় ১৯ রানেই প্রথম উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড। সিম বা স্পিন নয়,কাজ হলো রাজ্জাকের স্ট্রেইটারে। ৩.২ ওভারে মার্টিন গাপটিলকে (১১) বোল্ড করে বাংলাদেশকে প্রথম সাফল্য এনে দেন বাহাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক।
নিউজিল্যান্ডের রান রান তোলার গড় তখনো নিয়ন্ত্রনের ভেতরে- ছয়ের ঠিক নিচে। কিন্তু উইকেটে এসেই দৃশ্যপট বদলে দিলেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। জেমস ফ্র্যাঙ্কলিনকে সাথে নিয়ে দ্বিতীয় উইকেটে মাত্র ১০.৫ ওভারে জড়ো করেন ৯৪ রান।
টাইগার বোলারদের দম ফেলারও সময় দেননি ম্যাককালাম। শর্ট বলে পুল,লেন্থ বলে ড্রাইভ,সুযোগ বুঝে স্টেপ আউট,ডাউন দ্য উইকেট আর চার-ছয়ের ফুলঝুরি। ৫১ বলেই পৌঁছে যান শতকে। ইনিংসের শেষ বলে রাজ্জাকের বলে তামিম ইকবালের হাতে ধরা পড়ার আগে ব্রেন্ডন করেন ১২৩ রান। ৫৮ বলের মোকাবেলায় ১১টি চার ও ৭টি ছক্কায় গড়া তার এই শতক টি-টুয়েন্টির ইতিহাসের সেরা ব্যক্তিগত ইনিংস। টি-টোয়েন্টির এই ফরম্যাটে একমাত্র তিনিই দুবার শতকে পৌঁছালেন।
মূলতঃ ম্যাককালাম ও ফ্রাঙ্কলিনের এই ৯৪ রানের জুটিই নিউজিল্যান্ডকে বড় সংগ্রহের ভিত্তি গড়ে দেয়। দলীয় ১১৩ রানে ফ্রাঙ্কলিনকে সানির তালুবন্দী করিয়ে এই জুটি ভাঙ্গেন পেসার মাশরাফি বিন মর্তুজা। এছাড়া টেলরের ব্যাট থেকে ১৪ রান আসলে শেষ পর্যন্ত ২০ ওভার শেষে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ দাড়ায় ৩ উইকেটে ১৯১। ২৮ রানে ২ উইকেট নিয়ে রাজ্জাক বাংলাদেশের সেরা বোলার।
১৯২ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে বাংলাদেশ। ওভারে ৯.২ রানের চাহিদার বিশাল চাপের কাছে দুমড়ে মুচড়ে গেলো টাইগারদের ইনিংস। প্রথম ওভারের তিন নম্বর বলেই বিনা রানে সাজ ঘরে ফেরেন তামিম ইকবাল।
দলীয় ১৯ রানে সাকিব আল হাসান (১১) আর ৩৩ রানে মুশফিকুর রহিম (৪) মিলসের শিকারে পরিণত হলে ৩৩ রান তুলতেই তিন উইকেট খোয়ায় বাংলাদেশ। এর পর ৬.৪ ওভারে দলীয় ৩৭ রানে ২১ রান করা আশরাফুল আউট হলে শুরু হয়ে যায় কতো রানে হারবে বাংলাদেশ তার হিসাবের পালা।
পঞ্চম উইকেটে ৫০ রানের জুটি গড়ে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেছিলেন নাসির হোসেন ও সহ-অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। যদিও রিয়াদ-নাসিরের এই জুটি নিয়ে আশায় বুক বাঁধার সুযোগ ছিল না কোনো। এমনকি ক্ষতে প্রলেপ বলাও মুশকিল, হারের ব্যবধান কমেছে মাত্র। আলাদা করে পাওয়া বলতে হারা ম্যাচেও নাসিরের ফিফটি। তার ৩৯ বলের ইনিংসে ছিল ৬টি চার ও ১টি ছক্কার মার।
দলীয় ৮৭ রানে ম্যাককালামের বলে লং অনে উইলিয়ামসনের হাতে মাহমুদুল্লাহ (১৫) ধরা পড়লে আর বেশি দূর এগোয়নি বাংলাদেশের ইনিংস। এরপর ষষ্ঠ উইকেটে জিয়াউর রহমানকে (১৪*) নিয়ে ২৮ রানের আরেকটি জুটি গড়ে নাসির বিদায় নেন দলীয় ১১৫ রানে।
২০ ওভার শেষে বাংলাদেশ ৮ উইকেটে ১৩২ সংগ্রহ করলে ৫৯ রানের বড় ব্যবধানে হেরে যায় বাংলাদেশ। কিউইদের স্পিন আতঙ্ক নিয়ে যত কথাই ছড়াক না কেন, দুই পেসার টিম সাউদি (৩/১৬) ও মিলস (৩/৩৩) নেন তিনটি করে উইকেট ।
শেষ আটের স্বপ্ন দেখতে অলৌকিক কিছুই করে দেখাতে হবে বাংলাদেশকে। মঙ্গলবার ‘সি’ গ্রুপের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশ খেলবে সাবেক চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তানের বিপক্ষে।

ডি. সি./এম. এস./২০.৩৫
বিভাগ: খেলাযোগ   দেখা হয়েছে ৫৯১ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :