ব্রেকিং নিউজ:
ভারতের সাথে সমূদ্রসীমা ভাগাভাগি কঠিন হয়ে পড়ছে
নিউজ ডেস্ক    সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১২, বৃহস্পতিবার,     ০১:৫৩:৫৪

 

সাগরে নিরাপত্তা এবং পরিবেশের ওপর গূরুত্ব দিয়ে সাগরের সম্পদ ব্যবহারে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আন্তর্জাতিক সমুদ্রসীমা দিবস পালন করা হচ্ছে বৃহস্পতিবার। এদিনে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, ভারতের সাথে সমূদ্রসীমা ভাগাভাগি বাংলাদেশের জন্য ক্রমেই কঠিন হয়ে পড়ছে। তারা বলছেন আর্ন্তজাতিক আদালতে বাংলাদেশ জিতলেও নতুন কোন সীমানা যোগ হবে না। আর হারলে বাংলাদশে তার নির্ধারিত বশে কয়েকটি ব্লক হারাবে।
বাংলাদেশ ১৯৭৪ সালে সমুদ্রসীমা আইন পাশ করে। এর ফলে অগভীর সাগরের উপর তেল গ্যাস অনুসন্ধানের ব্লকগুলো চিহ্নিত করে। ২০০৮ সালে বিষয়টি নিয়ে প্রতিবেশী দেশগুলোর সাথে বিরোধ চূড়ান্ত রূপ নেয়। আন্তর্জাতিক আদালতের রায়ে মিয়ানমারের সাথে বিরোধ মিটেছে, কিন্তু ভারতের সাথে বিরোধ এখনও মেটেনি। ভারতের দাবী সমদূরত্ত্বের ভিত্তিতে সাগর ভাগ করতে হবে। যা সাগরতট থেকে ২০০ নটিকাল মাইলের ভেতরে ও বাইরে বাংলাদেশের অনেক তেল গ্যাস অনুসন্ধানের ব্লক ভেদ করে গেছে। বাংলাদেশ জাতিসংঘের স্থায়ী সালিশী আদালতের কাছে দাবি উপস্থাপন করেছে।
২০০৮ সালে বাংলাদেশ হাড়িয়াভাঙ্গা নদীর পলি প্রবাহ রেখা ধরে অতল সমুদ্র পর্যন্ত দাগ টেনে ভারতের সাথে তার সাগর সীমা ঠিক করে। সেখান থেকে ১৮০ ডিগ্রি ধরে আরেকটি রেখা সোজা দক্ষিণে একটি দাগ টানে। ভারত চায় হাড়িয়াভাঙ্গা নদীর পলি প্রবাহ ধরে টানা রেখাটিই এগিয়ে নেয়া হোক।
গত ৩০ জুলাই আর্ন্তজাতিক আদালতে ভারতীয় দাবির বিপরীতে বাংলাদেশ এখন তার প্রস্তুতি নিয়েছে।
ভারত সুমদ্রসীমা ভাগাভাগির বিষয়টিতে আগে আলোচনা করতে চাইলেও এখন আন্তর্জাতিক আদালতেই বাংলাদশ এর মিমাংসা চায় বলে জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
<> জে.বি/এ.আর/১৩৫৩
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৩৬৩ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :