ব্রেকিং নিউজ:
ঈদ উপলক্ষে রেলের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু
নিউজ ডেস্ক    অক্টোবর ১৩, ২০১২, শনিবার,     ১১:৪৩:৫৩

 

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে বাংলাদেশ রেলওয়ের অগ্রিম টিকেট বিক্রি আজ শনিবার থেকে শুরু হয়েছে। ঢাকার কমলাপুর ও চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে এই টিকেট বিক্রি করা হচ্ছে। এই অগ্রিম টিকেট বিক্রি চলবে ১৭ই অক্টোবর পর্যন্ত । তবে বরাবরের মতই প্রথম দিনে টিকেট না পাবার অভিযোগ করেছেন অনেক যাত্রী। যদিও রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ দাবী করছে টিকেটের কোনো সংকট নেই, আর ব্যবস্থাপনাও আগের তুলনায় অনেক ভালো।
রেলওয়ে সূত্র জানায়, আজ বিক্রি করা হয়েছে ২২ অক্টোবরের টিকেট। একজন যাত্রী বা সংগ্রহকারীকে সর্বোচ্চ ৪টি টিকেট দেয়া হচ্ছে।
সকাল সাতটা থেকে অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু হয়, চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। রাজধানীর বাইরে নিরাপদে গন্তব্যে যাবার জন্য যাত্রীদের প্রথম পছন্দ ট্রেন হলেও অন্যান্য বারের তুলনায় এবার প্রথম দিনে অগ্রিম টিকিট ক্রেতা যাত্রীর সংখ্যা কম লক্ষ্য করা গেছে। অনেকে যাত্রীর দাবি, ভাড়া বাড়ার কারণে মানুষ ট্র্রেন যাত্রা থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন। তার পরও
বিক্রি শুরুর পাঁচ থেকে ছয় ঘন্টার মধ্যেই ফুরিয়ে যায় বেশিরভাগ টিকেট। আর যারা চেয়েও টিকেট পাননি তাদের কন্ঠে ছিল অভিযোগ।
তবে টিকেট সংকটের বিষয়ে স্টেশন ম্যানেজার খায়রুল বশীর জানান, নির্দিষ্ট কিছু গন্তব্যের ক্ষেত্রে এ ঘটনা ঘটতে পারে, তবে টিকেটের কোন সংকট নেই। ঈদে যাত্রীদের নিরাপদ যাত্রা আর অতিরিক্ত যাত্রীদের চাপ সামলাতে সব ধরনের প্রস্তুতির কথাও জানান তিনি।
টিকেটের কালো বাজারি নিয়ে যাত্রীদের অভিযোগ প্রসংগে স্টেশন ম্যানেজার খায়রুল বশীর জানান, কালো বাজারে টিকেট বিক্রির কোন অভিযোগ এলে সাথে সাথেই সে ব্যপারে ব্যবস্থা নেয়া হবে। রেলের এই কর্মকর্তা জানান, ঈদুল আজহায় যাত্রীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে দেওয়ানগঞ্জ, পার্বতীপুর এবং খুলনা রুটে নামানো হবে তিনটি স্পেশাল ট্রেন, যাতে যুক্ত থাকবে অতিরিক্ত বগি।
এছাড়া ঈদে যাত্রীদের বাড়িতে ফেরা নিশ্চিত করতে ১০টি বিশেষ ট্রেন চালু থাকবে বলে সাংবাদিকদের জানান বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. আবু তাহের।।
তিনি বলেন, “ ১০টি ট্রেন ঈদের তিন দিন আগে থেকে চালু হবে। ২৪, ২৫ ও ২৬ অক্টোবর ট্রেনগুলো ঢাকা থেকে দেশের বিভিন্ন রুটে ছেড়ে যাবে।”
রেলওয়ের মহাপরিচালক আরো বলেন, ‘‘এবার রেলবহরে ১২৫টি নতুন কোচ সংযুক্ত করেছি, যাত্রী সুবিধা বাড়ানোর লক্ষ্যে।’’
প্রতিদিন বিভিন্ন রুটে ১৩৫৭৭টি করে অগ্রিম টিকিট দেওয়া হচ্ছে বলেও তিনি জানান। এর মধ্যে এবারে ভিআইপিদের জন্য ৫ শতাংশ, স্টাফদের জন্য ৫ শতাংশ, ই-টিকেটিং ২৫ শতাংশ এবং কাউন্টারের মাধ্যমে ৬৫ শতাংশ অগ্রিম টিকিট থাকছে।

এ. কা./এম. এস./১১.২০
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৮৪৮ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :