ব্রেকিং নিউজ:
আটক সোনালী ব্যাংকের সাবেক ডিজিএম দুদকে
নিউজ ডেস্ক    অক্টোবর ১৫, ২০১২, সোমবার,     ০৪:৫৫:১৬

 

হলমার্ক কেলেঙ্কারিতে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া সোনালী ব্যাংকের রূপসী বাংলা হোটেল শাখার সাবেক উপ-মহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) এ কে এম আজিজুর রহমানকে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কার্যালয়ে হাজির করা হয়েছে।
বেলা পৌনে ২টার দিকে দুদকের ৬ সদস্যের একটি টিম ডিএমপির রমনা থানা থেকে এ ব্যাংক কর্মকর্তাকে সেগুনবাগিচাস্থ দুদকের প্রধান কার্যালয়ে নিয়ে আসে।
দুদকের জ্যেষ্ঠ উপ পরিচালক মীর জয়নুল আবেদীন শিবলী জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হবে।তাকে আরও বিশদ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার রিমান্ড চাওয়া হবে বলেও জানান দুদকের এই উর্ধতন কর্মকর্তা।
রোববার রাতে রাজধানীর রমনা এলাকা থেকে তাকে আটক করে র‍্যাব-৩ ।
চলতি মাসের ৪ সেপ্টেম্বর তারিখে আজিজুর রহমানসহ হলমার্ক গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর মাহমুদ ও সোনালী ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক হুমায়ুন কবিরকে আসামি করে মোট ২৭ জনের নামে রমনা থানায় মামলা দায়ের করে দুদক।
সোনালী ব্যাংকের রূপসী বাংলা শাখা থেকে হলমার্ক গ্রুপসহ ৬টি কোম্পানি আত্মসাৎ করেছে মোট ৩ হাজার ৬৪৭ কোটি টাকা। এর মধ্যে হলমার্ক এককভাবে আত্মসাৎ করেছে দুই হাজার ৬৮৬ কোটি ১৪ লাখ টাকা।এ ঘটনায় মোট ১১টি মামলা করেছে দুদক।
ডিজিএম একেএম আজিজুর রহমান ছাড়াও মামলায় অভিযুক্তদের মধ্যে রয়েছেন হলমার্ক গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর মাহমুদ, তানভীরের স্ত্রী ও গ্রুপের চেয়ারম্যান জেসমিন ইসলাম, তানভীরের ভায়রা ও গ্রুপের জিএম তুষার আহমেদ, সোনালী ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক হুমায়ুন কবির, ব্যাংকের রূপসী বাংলা শাখার শাখার এসইও সাইফুল হাসান, ইও আবদুল মতিন, ব্যাংকের ডিএমডি কাজী ফখরুল ইসলাম, আতিকুর রহমান, জিএম নওশের আলী খন্দকার, মাহবুবুল হক, আনম মাসরুরুল হুদা সিরাজী, মোস্তফিজুর রহমান, ননীগোপাল নাথ, মীর মহিদুর রহমান।
এদিকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, সন্দেহের তালিকায় থাকা ব্যাংকটির অন্য কর্মকর্তারাও কড়া নজরদারিতে রয়েছেন। যে কোনো মুহূর্তে তাদের গ্রেফতার করা হতে পারে।

এম. এস./১৫.২০
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৪৮৯ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :