ব্রেকিং নিউজ:
বাংলাদেশ দূতাবাস কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলবেনা নাফিস
নিউজ ডেস্ক    অক্টোবর ২২, ২০১২, সোমবার,     ০৬:৩৩:৩৪

 

নিউইয়র্কের ব্রুকলিন কারাগারে আটক নাফিস বাংলাদেশ দূতাবাস কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলতে অনীহা প্রকাশ করেছে বলে মার্কিন কর্তৃপক্ষ দূতাবাসকে জানিয়েছে। এছাড়া, এফবিআই যেভাবে অভিযোগ সাজিয়েছে তাতে নাফিসের রেহাই পাবার সম্ভাবনা নেই বলেই মনে করা হচ্ছে।
নিউইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক ভবন বোমা মেরে উড়িয়ে দেয়ার চেষ্টার অভিযোগে গ্রেফতার বাংলাদেশী যুবক রেজওয়ানুল আহসান নাফিস এখন ব্রুকলিনের কারাগারে বন্দী।
এফবিআইয় অভিযোগ এনেছে নাফিস যুক্তরাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তাদের ছাড়াও রিজার্ভ ব্যাংক, নিউইয়র্ক স্টক এক্সচেঞ্জ ও আরো কয়েকটি স্থাপনায় বোমা হামলার পরিকল্পনা করছিল।
জুলাই মাসের ফেসবুকে যুক্তরাষ্ট্র বিরোধী স্ট্যাটাস দেয় নাফিস। এর পরই এফবিআইয়ের নজর আসে সে। ৫ জুলাই ছদ্মবেশী এফবিআই এজেন্টের সাথে ফেসবুকে বন্ধুত্ব। ৬ জুলাই ঐ এজেন্টকে নাফিস জানায় ‘জিহাদ’ করতে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছে সে। আলাপে আলাপে ১২ জুলাই নাফিস জানায় মধ্যপ্রাচ্যের কোন আল কায়েদা নেতাই তাঁর আদর্শ।
এফবিআই এজেন্টের সাথে ২৪ জুলাই ম্যানহাটনের প্রথম বৈঠক করে নাফিস। এসময় ইয়কিন নামের একটি ই-মেইল একাউন্ট থেকে নাফিসের সাথে যোগাযোগ করে। হাওয়ার্ড উইলি কার্টার যার প্রকৃত নাম। এ ঘটনায় উইলিও গ্রেফতার আছে।
৪ অক্টোবর, নাফিস বোমার বিভিন্ন কারিগরি দিক পরখ করেন। ১২ অক্টোবর মোবাইল ফোনে সুইচের মাধ্যমে কিভাব বোমার বিস্ফোরণ করা যায় তা দেখানো হয়। ১৫ অক্টোবর ঠিক করা হয়, ১৭ অক্টোবর ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকের হামলার।
আদালতে পেশ করা অভিযোগে এফবিআইয়ের ঐ এজেন্টের দাবী, বোমার বিস্ফোরণে অনেক বেসামরিক হতাহত হবে, জানার পরও হামলায় আগ্রহী ছিল নাফিস।
গত জানুয়ারিতে স্টুডেন্ট ভিসায় বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে পড়তে এসেছিল নাফিস। ৯ মাসের মধ্যে কি করে আল কায়েদার মতো কোন সংগঠনের সাথে জড়িয়ে পড়লো সে? এমন প্রশ্ন এখন নাফিসের পরিবারের।

এ.আর/১৮২৬
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৪৮৫ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :