ব্রেকিং নিউজ:
অন্যায়ের প্রতিবাদ বা প্রাপ্য দাবি করা ভারত বিরোধিতা নয়: তরিকুল
নিউজ ডেস্ক    নভেম্বর ০৬, ২০১২, মঙ্গলবার,     ০৬:১৮:৩২

 

ভারত সফরে সমতার নীতিতে সমস্যা সমাধানের কথা হয়েছে: তরিকুল
বিরোধী দলীয় নেতা এবং বিএনপি’র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার ভারত সফর নিয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলেন করেছে বিএনপি।
মঙ্গলবার দুপুরে চেয়ারপারসনের গুলশানের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে দলের পক্ষে স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম জানিয়েছেন,খালেদা জিয়ার ভারত সফরে সমতার নীতিতে ভারত-বাংলাদেশ সমস্যার সমাধানের ব্যাপারে বিএনপি তাদের অবস্থান স্পষ্ট করেছে এবং এই সফরের কারণে বিএনপি’র ভারত নীতিতে কোনো পরির্তন আসবে না।
সাত দিনের সফর শেষে গত শনিবার দেশে ফেরার তিন দিন পর আয়োজন করা এই আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে খালেদা জিয়া নিজে উপস্থিত ছিলেন না। সফরে প্রতিনিধিদলের মুখপাত্র তরিকুল ইসলাম জানান, সফরকালে ভারতের প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা, পররাষ্ট্র সচিব ও বিরোধী দলের নেতাসহ গুরুত্তপূর্ণ রাষ্ট্রীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে দারিদ্র্যবিমোচন ও সমৃদ্ধির লক্ষ্যে একযোগে কাজ করার ব্যাপারে উভয়পক্ষ একমত হয়েছে।
বিরাজমান সমস্যা দূর করার লক্ষ্যে পারস্পরিক অনাস্থা, অবিশ্বাস ও সন্দেহ দূর করে পেছনে না তাকিয়ে সামনে অগ্রসর হওয়ার ব্যাপারে ঐকমত্য হয়েছে।
তরিকুল ইসলাম জানান, সফরকালে খালেদা জিয়া বাংলাদেশের জনগণের পক্ষ থেকে তিস্তার পানি বণ্টনে ন্যায্যহিস্যা, সীমান্ত হত্যা বন্ধসহ দ্বিপাক্ষিক নানা বিষয় নিয়ে ভারতীয় নেতাদের সঙ্গে কথা বলেছেন এবং তা দ্রুত সমাধানের আহ্বান জানিয়েছেন। ভারত সরকারও দুদেশের বিরাজমান সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন।
তরিকুল ইসলাম এ কথাও জানান যে, খালেদা জিয়া ভারত সফরে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ রাজনীতি, আসন্ন নির্বাচন এবং নির্বাচন পদ্ধতি নিয়ে কোনো কথা বলেন নি বা আলোচনা করেন নি।এই সফরের কারণে বিএনপি'র ভারত নীতিতে কোনো পরিবর্তন আসবে না। বিএনপি চায় সমতার ভিত্তিতে সব সমস্যার সমাধান।অন্যায়ের প্রতিবাদ করা বা প্রাপ্য দাবি করা ভারত বিরোধিতা নয়।
টিপাইমুখ বাঁধের ব্যাপারে ভারত বলেছে যে যৌথ সমীক্ষা ছাড়া এ বাঁধ নির্মাণ করা হবে না। আর খালেদা জিয়া ট্রানজিট নয়, ‘কানেকটিভিটি' নিয়ে কথা বলেছেন।
এছাড়া তরিকুল ইসলাম বলেন, খালেদা জিয়া ভারতকে চট্টগ্রামের গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণে অংশীদার হওয়ার অনুরোধ করেছেন।
বিরোধী নেত্রীকে সম্মান ও আতিথেয়তা দিয়ে বাংলাদেশের মানুষের অনুভূতির প্রতি শ্রদ্ধা দেখানোর জন্য ভারত সরকারকে তাদের ধন্যবাদ জানান সাবেক এই তথ্যমন্ত্রী।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার এই ভারত সফর দেশের স্বার্থে৷ তাই এ নিয়ে তাদের শরীক জামায়াতে ইসলামীর নাখোশ হওয়ার কিছু নেই৷
সংবাদ সম্মেলনে ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা রিয়াজ রহমান, প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান উপস্থিত ছিলেন।

এম. এস./১৯.২৫
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৬৪৫ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :