ব্রেকিং নিউজ:
দেশের বিভিন্ন স্হানে শিবির-পুলিশ সংঘর্ষ;আহত দেড়শতাধিক
নিউজ ডেস্ক    নভেম্বর ১১, ২০১২, রবিবার,     ১১:৪৩:১৮

 

দেশের বিভিন্ন জেলায় আবারো শিবির-পুলিশ সংষর্ষ হয়েছে। শনিবার এসব ঘটনায় পুলিশ কর্মকর্তাসহ আহত হয়েছে প্রায় দেড়শতাধিক। যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে আটক জামায়াত নেতাদের মুক্তির দাবিতে মিছিলের সময় বিভিন্ন স্থানে শিবির কর্মীরা ইট-পাটকেলসহ বিভিন্ন অস্ত্র নিয়ে পুলিশের ওপর চড়াও হয়। এছাড়া বেশকিছু যানবাহনে আগুনও দেয় তারা।
রাজধানীর মিরপুর ১০ নাম্বার ও আশপাশের এলাকায় শনিবার ভাঙ্গচুর চালিয়েছে জামায়াত-শিবিরকর্মীরা। এসময় পুলিশসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, মিরপুর আগারগাঁও সড়কের চারপাশের বিভিন্ন গলি থেকে কয়েকটি দলে ভাগ হয়ে জামাত শিবিরের কর্মীরা মূল সড়কে এসে ভাঙ্গচুর শুরু করে। এসময় পুলিশের গাড়িসহ বেশ কয়েকটি যানবাহন ভাংচুর করে শিবিরকর্মীরা। এতে পুলিশ সদস্যসহ ১০জন পথচারী আহত হয়। পরে এসব ঘটনায় চারজনকে আটক করে পুলিশ।
শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে রাজশাহীতে জামায়াত নেতাদের মুক্তির দাবিতে শিবিরের নেতাকর্মীরা মহনগরীর লক্ষ্মীপুর ঝাউতলা এলাকায় একটি মিছির বের করে।
এ সময় পুলিশ তাদের ধাওয়া করলে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। শিবিরকর্মীরা পুলিশের উপর ইট পাটকেল নিয়ে আক্রমণ করে। এ সংঘর্ষে আহত হয়েছে প্রায় ২৫ জন। বোয়ালিয়া থানার ওসি আলমগীর হোসেন জানান, সন্ধ্যা ৬টার দিকে পুলিশ রাণীবাজার এলাকা থেকে আট শিবিরকর্মীকে আটক করেছে।
তিনি বলেন, সম্ভাব্য নাশকতা এড়াতে পুরো নগরীতে পুলিশের চিরুনী অভিযান চলছে।
সিলেটে বিকেল পৌণে পাঁচটায় নগরীর আম্বরখানা রাজারগলি মোড় থেকে মিছিল বের করে শিবিরকর্মীরা। মিছিলটি হাউজিং এস্টেটে পৌঁছার পর শুরু হয় পুলিশের সাথে সংঘর্ষ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। ৪৫ মিনিট ধরে চলা সংঘর্ষে কমপক্ষে ১৫জন আহত হয়। এরমধ্যে পাঁচজন পুলিশ সদস্য রয়েছে। এখান থেকে পাঁচ শিবিরকর্মীকে আটক করা হয়েছে।
চাঁদপুরে আন্ত:জেলা বাস স্ট্যান্ডের ইলিশ চত্তর এলাকা থেকে জামায়াত শিবির শনিবার বিকেলে একটি মিছিল বের করলে পুলিশ তাতে বাধা দেয়। এতে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে শিবিরকর্মীরা। এখানে সংর্ঘষে কমপক্ষে ১৫জন আহত হয়। ঘটনাস্হল থেকে নয়জন জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীকে আটক করে পুলিশ।
এদিকে লক্ষ্মীপুরে বিকেলে হঠাৎ করেই শিবিরকর্মীরা একটি মিছিল থেকে পুলিশের ওপর চড়াও হলে সংঘর্ষ বাধে। ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে চার পুলিশ আহত হয়। এ সময় তিন শিবিরকর্মীকে আটক করে পুলিশ।
কর্মী নিহতের হওয়ার প্রতিবাদে যশোরে বিক্ষোভ মিছিল করে ইসলামী ছাত্রশিবির। মিছিলটি শহরের রেল রোডে পৌঁছালে তারা পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। শিবিরের তান্ডবে পুলিশ এক পর্যায়ে পিছু হটতে বাধ্য হয়। পরে আরো পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এখান থেকে ঘটনার সাথে জড়িত ছয়জনকে আটক করে পুলিশ। এছাড়া, কুমিল্লার লাকসামে পশ্চিমগাঁও এলাকায় ছাত্র শিবিরের অতর্কিত হামলায় চার পুলিশসহ আটজন আহত হয়েছে।
এফ.এল/এস.এম.বি/১০.০০
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ১২৮৮ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :