ব্রেকিং নিউজ:
বিভিন্ন জেলায় শিবিরের মিছিল-ভাংচুর; আটক ১১
নিউজ ডেস্ক    নভেম্বর ১৯, ২০১২, সোমবার,     ০৩:৪১:৪২

 

কারাবন্দী নেতাকর্মীদের মুক্তি এবং যুদ্ধাপরাধাদের বিচারের নামে জুলুম বন্ধের দাবিতে দেশের বিভিন্ন এলাকায় মিছিল করেছে শিবিরকর্মীরা। এসব মিছিল থেকে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ হয় শিবিরকর্মীদের। এতে পুলিশ কর্মকর্তাসহ ১০জন আহত হয়েছে। রোববার রাত থেকে ঘটনায় জড়িত ১১ শিবিরকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।
নারায়ণগঞ্জে সোমবার বেলা ১১টার দিকে প্রেসক্লাব, পুরনো কোর্ট এলাকা থেকে ঝটিকা মিছিল বের করে ছাত্রশিবির। এ সময় তারা যানবাহন ভাংচুর, পুলিশের উপর হামলা ও পুলিশের গাড়িতে আগুন দেয়ার চেষ্টা করে। পুলিশ তাদের প্রতিহত করতে লাঠিচার্জ ও টিয়ারশেল ছুড়লে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এতে সদর থানার ওসিসহ ১০ জন আহত হন।
এদিকে রাজশাহী মহানগরীর এক ছাত্রাবাস থেকে বিপুল পরিমাণ সাংগঠনিক বই, সিডিসহ ছাত্র শিবিরের ৩ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, নগরীর হাদীরমোড় এলাকার স্কাই ভিউ নামের ওই ছাত্রাবাসটি শিবিরকর্মীরা তাদের গোপন আস্তানা হিসেবে ব্যবহার করতো। আটককৃতরা মিছিলে অংশ নেয়া শিবিরের নেতাকর্মীদের সার্বক্ষণিক তদারকি করতেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।
সোমবার সকালে দিনাজপুর শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ইসলামী ছাত্র শিবিরের নেতাকর্মীরা। মিছিলটি কালিতলা সড়ক থেকে বের হয়ে সুইহারীর চৌরঙ্গী সিনেমা হলের সামনে গিয়ে শেষ হয়। এসময় রাস্তার উপর টায়ারে আগুন দিয়ে কিছু সময়ের জন্য যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয় তারা। পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় আগুন নিভিয়ে ফেলে কোতয়ালী থানা পুলিশ। এছাড়া এখানে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।
গাইবান্ধায় সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় ইসলামী ছাত্রশিবির শহরে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এ সময় পুলিশ ধাওয়া করে মিছিলটি ছত্রভঙ্গ করে দেয়। পুলিশের বাধা পেয়ে মিছিলকারীরা বিভিন্ন যানবাহন ভাংচুরের চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়। পরে পুলিশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের নেতা কর্মীদের গ্রেফতারে উদ্দেশ্য শহরের বিভিন্ন স্থানে তল্লাশি চালিয়ে কদমতলী মোড় থেকে এক শিবির কর্মীকে আটক করে।
এছাড়াও যশোর কোতোয়ালী থানার পুলিশ সোমবার ভোররাতে শহরের বারান্দিপাড়ার একটি মেস থেকে ৭ শিবিরকর্মীকে আটক করেছে। আটককৃতরা সবাই শিবিরের সাংস্কৃতিক সংগঠন তরঙ্গ শিল্পী গোষ্ঠীর সদস্য।
এস.এম.বি/০৩.৪০
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৪৯৭ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :