ব্রেকিং নিউজ:
দোহায় শুরু হচ্ছে জলবায়ু সম্মেলন
নিউজ ডেস্ক    নভেম্বর ২৬, ২০১২, সোমবার,     ০৯:৪৬:২৭

 

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় উন্নত দেশগুলোর দেয়া অর্থ সহায়তার প্রতিশ্রুতি ধীরে ধীরে মিথ্যা প্রমানিত হচ্ছে। ২০১২ সালের মধ্যে উন্নত দেশগুলো বাংলাদেশসহ উন্নয়নশীল দেশগুলোকে ৩০ বিলিয়ন ডলার দেবার কথা থাকলেও এপর্যন্ত ছাড় হয়েছে মাত্র তিন বিলিয়ন ডলার। আর ২০১১ সালে ডারবান সম্মেলনে ‘গ্রীণ ক্লাইমেট ফান্ড’ গঠন করা হলেও এতে কোন অর্থ জমা পড়েনি। এমনি বাস্তবতাকে সামনে রেখে কাতারের দোহায় আজ সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে জাতিসংঘ জলবায়ু সম্মেলন।
এবারের দোহা সম্মেলন জাতিসংঘ জলবায়ু পরিবর্তন কাঠামো সনদের(ইউএনএফসিসিসি) অধীনে বাংলাদেশসহ ১৯৫টি দেশের ১৮তম বার্ষিক বৈঠক। যা কপ ১৮ নামে সমধিক পরিচিত। বাংলাদেশ এবারও অনেক প্রস্তুতি নিয়েই এ সম্মেলনে যোগ দিচ্ছে।
প্রত্যাশা, প্রতিশ্রুতি আর প্রাপ্তির মধ্যে এখন অনেক ফারাক। ২০০৭ সালে বালি রোড ম্যাপের মাধ্যমে শিল্পোন্নত দেশগুলো কার্বণ নির্গমন আর বৈশ্বিক তাপমাত্রা কমাতে যে প্রতিশ্রুতি দেয় তার মাত্র দশ শতাংশ বাস্তবায়িত হয়েছে। পরিবেশমন্ত্রী হাছান মাহমুদ অভিযোগ করছেন, ২০০৯ সালে কোপেনহেগেনে উন্নত দেশগুলো ঠিক করে বনায়ন আর ঝুঁকি মোকাবেলায় প্রযুক্তি সহায়তা দিতে উন্নয়নশীল দেশগুলোকে ২০১২ সালের মধ্যে ৩০ বিলিয়ন ডলার দেবে। কিন্তু সবকিছুই এখন আটকে আছে ফাইলবন্দী হয়ে।
উন্নত দেশগুলো কি মাত্রায় কার্বণ নির্গমন করতে পারবে তা নির্ধারন করে গঠিত কিয়োটো প্রটোকল। এর মেয়াদ শেষ হবে ২০১২ সালে। জাপান কানাডা রাশিয়া ইতোমধ্যেই কিয়োটো প্রটোকল থেকে নিজেদের নাম প্রত্যাহার করেছে। দ্বিতীয় মেয়াদে কিয়োটো প্রটোকল চালুর ব্যাপারে বাংলাদেশের দৃঢ় অবস্থানে থাকবে দোহা সম্মেলনে বলে জানিয়েছেন পরিবেশমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।
এছাড়াও মেধাস্বত্ত্ব ত্যাগ করে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করতে দেবার যে প্রতিশ্রুতি উন্নত দেশগুলো বাংলাদেশ বা মালদ্বীপের মতো দেশগুলোকে দিয়েছিল তা যেনো বাস্তব রুপ নেয় সে বিষয়েও জোরালো অবস্থানে থাকবে বাংলাদেশ।
জে.বি/এস.এম.বি/০৯.৩০
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৯০২ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :