ব্রেকিং নিউজ:
জামায়াত-শিবির আতঙ্কে রাজশাহীবাসী
নিউজ ডেস্ক    ডিসেম্বর ০৭, ২০১২, শুক্রবার,     ০১:১৫:২১

 

কৌশল বদলে রাজশাহীতে জামায়াত-শিবিরের চোরাগোপ্তা হামলা বেড়েই চলেছে। পুলিশসহ ভিন্ন মতের রাজনৈতিক নেতারাও এসব হামলার শিকার হয়েছেন। এ ধরণের ঘটনায় নগরবাসীর মনে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।
গত ৬ নভেম্বর রাজশাহী মহানগরীর সাহেব বাজার এলাকায় অস্ত্র কেড়ে নিয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালায় জামায়াত-শিবির কর্মীরা। এ ঘটনার ১৫ দিন পর গত ২১ নভেম্বর সন্ধ্যায় ক্যাম্পাসের মধ্যেই অতর্কিত হামলা চালিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতা আখেরুজ্জামান তাকিমের হাত-পায়ের রগ কেটে দেয় ছাত্রশিবির কর্মীরা। তাকিম বর্তমানে ঢাকা মেডিকেলে মুমূর্ষু অবস্হায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। প্রায়ই পুলিশের ওপর চোরাগোপ্তা হামলা ও অস্ত্র ছিনতাইয়ের চেষ্টা করছে করছে তারা, পুলিশের গাড়ি ভাংচুর ও গাড়ি পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনাও ঘটেছে। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্হানে জামায়াত-শিবির কর্মীদের হামলায় পুলিশ সদস্যরা আহত হবার পাশাপাশি ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতির শিকার হয়।
জামায়াত-শিবিরের এমন নাশকতায় আতংকিত হয়ে পড়েছে রাজশাহীবাসী। এ ধরণের চোরাগোপ্তা হামলা থেকে রেহাই পাচ্ছে না রাজনৈতিকভাবে ভিন্ন মতাদর্শের নেতা কর্মীরাও। এছাড়াও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ কর্মীদের মধ্যে রগ কাটা আতংক বিরাজ করছে। রাজশাহীর প্রবীণ রাজনীতিকরা মনে করছেন যুদ্ধাপরাধের বিচার ঠেকাতেই এই সহিংসতার পথ বেছে নিয়েছে দলটি।
রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার এস এম মনির উজ্জামান বলছেন, এসব সহিংসতার ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে আমরা কয়েকজন জামায়াত-শিবির কর্মীকে আটক করতে পারলেও বেশিরভাগই এখনও ধরা ছোঁয়ার বাইরে রয়ে গেছে। পুলিশের দাবি শিবির কর্মীদের বেশভুষায় পরিবর্তন ও কৌশলী অবস্থানের কারণে তাদের সহসায় ধরতে পারেননি তারা।
প্রবীণ রাজনীতিবিদ মুস্তাফিজুর রহমান খান বলছেন, এই হামলা ১৯৭১ সালে জামায়াতের হামলার মতো। তিনি বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বাধাগ্রস্থ করতে দেশি-বিদেশি চক্র জামায়াত-শিবিরকে বিভিন্নভাবে ইন্ধন জোগাচ্ছে। জামায়ত-শিবিরকে রুখতে প্রগতিশীল শক্তিকে সক্রিয় থাকার আহবান জানিয়েছেন প্রবীণ এই রাজনীতিবিদ।
এস.এম/এস.এম.বি/১২.৫০
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৫৮৫ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :