ব্রেকিং নিউজ:
সারসিনার পীরের বিরোধীতায় দু’দিন পর মুক্ত হয় স্বরুপকাঠি
নিউজ ডেস্ক    ডিসেম্বর ১৯, ২০১২, বুধবার,     ০১:০৮:৪৪

 

সারসিনার পীর ও তার অনুসারীদের বিরোধিতার কারণে ১৬ই ডিসেম্বরের দু'দিন পর মুক্ত হয় পিরোজপুরের স্বরুপকাঠি। ১৯৭১ সালে সেখানকার সারসিনা দরবারে ঘাঁটি গড়ে নির্মম নির্যাতন চালাতো হানাদার বাহিনী। যার প্রমাণচিহ্ন এখনও রয়ে গেছে, স্বরুপকাঠিতে। সেসব দিনের কথা মনে করে এখনো শিউরে ওঠেন এলাকার মানুষ।
মুক্তিযুদ্ধে পাকসেনাদের সবচেয়ে বড় ঘাঁটি ছিল স্বরুপকাঠির সারছিনা দরবার শরীফ। এলাকাবাসী অভিযোগ করেন, সে সময় পাকসেনা আর রাজাকারদের সাথে মিলে নিরীহ মানুষের ওপর নির্যাতন চালিয়েছিলেন দরবার শরীফের বড় পীর আবু জাফর মোহাম্মদ সালেহ। যার স্বাক্ষী ইন্দের হাট বন্দরের বধ্যভূমি, ইন্দের হাট বাজার, শেখ পাড়াসহ ঘোষ বাড়ির খাল বধ্যভূমি। পরে ঘোষ পাড়া খালেই তৈরি করা হয় আজকের দরবার শরীফ। মাদ্রাসাছাত্র, দরবার শরীফের বড় পীরসহ রাজাকারদের নিয়ে পাকসেনারা সে সময় স্বরুপকাঠির বিভিন্ন গ্রামে হত্যা করেছিল সাধারণ মানুষসহ মুক্তিযোদ্ধাদের। স্বজন হারানোর সেই বেদনা আজো বয়ে বেড়াচ্ছেন মিয়ার হাটের বাসিন্দারা। স্বাধীনতার একচল্লিশ বছরে যুদ্ধের সেই দিনগুলোর কথা মনে করে আবারো ঝলসে উঠেন মুক্তিযোদ্ধারা। মুক্তিযুদ্ধে পাকসেনাদের সাহায্য করে যারা এদেশের নিরীহ মানুষদের উপর বর্বরতা চালিয়েছিল তাদের বিচারের আশায় এখনো বুক বেঁধে আছে স্বরুপকাঠিবাসী।
এস.এম.বি/০১.০০
বিভাগ: দেশযোগ   দেখা হয়েছে ১১৭৭ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :