ব্রেকিং নিউজ:
সাঈদীর ফাঁসির আদেশ
    ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০১৩, বৃহস্পতিবার,     ১১:৩০:৩৬

 

একাত্তরের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় হত্যা, লুণ্ঠন, নির্যাতনের মতো মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার নির্দেশ দিয়েছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।
বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি এটিএম ফজলে কবীরের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল এ রায় ঘোষণা করেন।
দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে ট্রাইব্যুনাল যখন ঘৃণ্যতম মানবতাবিরোধী অপরাধ ঘটানো, কুখ্যাত নরঘাতক দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন এই বলে ‘তার মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত ফাঁসিতে ঝুলিয়ে তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হোক’, তখন উল্লাসে ফেটে পড়ে প্রজন্ম চত্বরে সমবেত তরুণরা, স্বস্তি্র নিঃশ্বাস ফেলেন সারাদেশের মুক্তিযোদ্ধা আর দেশপ্রেমিক মানুষ।
পিরোজপুরের মানুষের কাছে ‘দেইল্লা রাজাকার’ নামে পরিচিত সাঈদীর বিরুদ্ধে যে ২০টি মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছিল, তার মধ্যে ট্রাইব্যুনালে আটটি সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে বলে রায়ে জানানো হয়।
বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা ৯ মিনিটে সাঈদীকে কাঠগড়ায় নিয়ে আসার পর এজলাসে আসন গ্রহণ করেন চেয়ারম্যান বিচারপতি এটিএম ফজলে কবীর এবং দুই সদস্য বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি আনোয়ারুল হক।
বিচারপতি ফজলে কবীর সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেয়ার পর সোয়া ১১টার দিকে বিচারপতি আনোয়ারুল হক ১২০ পৃষ্ঠার রায়ের সংক্ষিপ্তসার উপস্থাপন শুরু করেন।
ট্রাইব্যুনালের অপর বিচারক বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেনও রায়ের অংশবিশেষ পড়েন।
একাত্তরে যুদ্ধাপরাধের মামলার রায়ের জন্য দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে সকালেই কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ট্রাইব্যুনালে নিয়ে আসা হয়। এসময় আদালতের এজলাসে সাঈদীকে বিষন্ন দেখাচ্ছিল।
মুক্তিযুদ্ধের সময় পিরোজপুরে হত্যা, লুণ্ঠনসহ বিভিন্ন অভিযোগে দায়ের করা একটি মামলায় ২০১০ সালের ২৯ জুন গ্রেপ্তার করা হয় সাবেক সংসদ সদস্য সাঈদীকে। পরের বছর ১৪ই জুলাই তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আমলে নেয় ট্রাইব্যুনাল।
মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আটক জামায়াত নেতাদের মধ্যে দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর বিরুদ্ধেই সবার আগে অভিযোগ গঠন হয়। একাত্তরে ৩ হাজারেরও বেশি নিরস্ত্র ব্যক্তিকে হত্যা বা হত্যায় সহযোগিতা, ধর্ষণ, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট, ভাংচুর ও ধর্মান্তরে বাধ্য করাসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের ২০টি ঘটনায় ২০১১ সালের ৩ অক্টোবর অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে তার বিচার শুরুর আদেশ দেয় ট্রাইব্যুনাল।

এম. এস./ ১৩.৪৫
বিভাগ: দেশযোগ   দেখা হয়েছে ১০৫৫ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :