ব্রেকিং নিউজ:
আওয়ামী লীগের ৬৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ
    জুন ২৩, ২০১৩, রবিবার,     ১০:৪৩:১৬

 

৬৫ বছরে পা রাখলো দেশের অন্যতম প্রাচীন রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন পুরান ঢাকার রোজ গার্ডেনে আত্মপ্রকাশ ঘটে বাঙালি জাতির মুক্তির বার্তাবাহী সংগঠনটির। সেই থেকেই বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধসহ সকল গণতান্ত্রিক ও রাজনৈতিক আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়ে এসেছে ঐতিহ্যবাহী এ দলটি।
২৩ জুন রাত ১২টা ১ মিনিটে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া কেক কেটে “সংগ্রাম ও সাফল্যের ৬৪ বছর পূর্তি পালন কর্মসূচি” র উদ্বোধন করেন।
উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের মহানগর কমিটির সহসভাপতি মুকুল চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদসহ দলের নেতাকর্মীরা । এ সময় তারা গণতন্ত্র রক্ষা করে এবং জঙ্গিবাদ রুখে যুদ্ধাপরাধীমুক্ত “বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা” গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
স্বাধীকার-স্বাধীনতা-শোষণমুক্তি ও আত্মনিয়ন্ত্রণ লাভের সুনির্দিষ্ট রাজনৈতিক লক্ষ্যে জনগণকে সংগঠিত করার অপরিহার্য বাস্তবতায় জন্ম হয় আওয়ামী লীগের। হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী ও মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর মতন প্রগতিবাদী নেতাদের উদ্যোগে তখনকার ‘বঙ্গীয় প্রাদেশিক মুসলিম লীগ’এর একাংশের সম্মেলনের মধ্য দিয়ে ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন পুরান ঢাকার টিকাটুলীর কে এম দাস লেনের রোজ গার্ডেনে জন্ম নেয় 'পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ'।
গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা ও জাতীয়তাবাদ- এ চার মৌল নীতির উপর প্রতিষ্ঠিত সংগঠনটির প্রথম সভাপতি ছিলেন মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী, আর প্রথম সাধারণ সম্পাদক শামসুল হক।
পরে, ১৯৫৫ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত ৩য় সম্মেলনে ধর্মনিরপেক্ষতা ও অসাম্প্রদায়িক চেতনাকে সুস্পষ্টভাবে ধারণ করার প্রত্যয়ে দলের নাম থেকে বাদ দেয়া হয় মুসলিম শব্দটি।
প্রতিষ্ঠার পর থেকেই এ দেশে পাকিস্তানি সামরিক শাসকদের নির্যাতন ও শোষণের বিরুদ্ধে সব লড়াইয়ে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে আওয়ামী লীগ। ১৯৬৬ সালে ৬ দফাভিত্তিক বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলন এবং ১৯৬৯ সালের গণ-অভ্যুত্থানে সাফল্যের পথ ধরে ১৯৭০ সালের সাধারণ নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ জনগণের নিরঙ্কুশ রায় পায়। ১৯৭১ সালে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে শুরু হয় মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের অভ্যুদয় হয়।
যুদ্ধবিদ্ধস্থ দেশগড়াসহ দেশ পরিচালনায় বঙ্গবন্ধুর ৩ বছর ও ১৯৯৬ সাল থেকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ৫ ও বর্তমানে সাড়ে ৪ বছর, এই সাড়ে ১২ বছর ক্ষমতায় দলটি।
দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী বার্ষিকী উপলক্ষে রোববার সুর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে কেন্দ্রীয় কার্যালয় এবং দেশব্যাপী দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন কর্মসূচি পালন করার কর্মসূচি রয়েছে।
এ ছাড়া বঙ্গবন্ধু ভবন প্রাঙ্গণে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন, জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল ৭টায় বঙ্গবন্ধু ভবনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন, বিকেল সাড়ে ৩টায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের শিখা চিরন্তন থেকে ধানমন্ডি ৩২ নম্বর সড়কে বঙ্গবন্ধু ভবন পর্যন্ত গণশোভাযাত্রার করবে দলের নেতাকর্মীরা।

এম.এস./০৭.১৫
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৬২০ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :