ব্রেকিং নিউজ:
ফৌজদারি কার্যবিধির সংশোধনী বিল আগামী অধিবেশনে : আইনমন্ত্রী
    জুন ২২, ২০১৩, শনিবার,     ১১:২৩:৫২

 

বিচার প্রক্রিয়ার ধীর গতি দেশে অবিচার সৃষ্টি করে এমন মন্তব্য করে আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ বলেছেন, মামলা জট কমাতে সংসদের পরবর্তী অধিবেশনে ফৌজদারি কার্যবিধি সংশোধন বিল উপস্থাপন করা হবে ।
শনিবার সকালে ফৌজদারি কার্যবিধি সংশোধন নিয়ে আয়োজিত এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
আর একই মতবিনিময় সভায় আইন প্রতিমন্ত্রী কামরুল ইসলাম মন্তব্য করেন, দেশে নারী নির্যাতনের যত মামলা হয় তার ৯০ ভাগই মিথ্যা মামলা।
১৮৯৮ সালের ফৌজদারি কার্যবিধি সংশোধন বিলের খসড়ার বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনার জন্য এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করে আইন মন্ত্রণালয়। এতে আইনমন্ত্রী বলেন, ছোট বিষয়গুলো নিয়ে সমঝোতায় না গিয়ে মামলা করার ফলে বিচার বিভাগে মামলার চাপ বাড়ছে। এসময় তিনি নারী ও শিশু নির্যাতনসহ চেক ডিজঅনার মামলা মধ্যস্থতার মাধ্যমে নিষ্পত্তির পরামর্শ দেন।
শফিক আহমেদ বলেন, মামলা জটের কারণে অনেক সময় ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হয় না। আবার দেখা যায়, মিথ্যা মামলার বিচারে অনেক সময় নষ্ট হয়, ফলে বিচারের বিষয়টিও অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। আর এ কারণে এখন আইন সংশোধন জরুরি হয়ে পড়েছে।
মন্ত্রী আরো জানান, এই সংশোধনী বিলে সুষ্ঠু তদন্তের জন্য আলাদা সেল ও মিথ্যা মামলা সনাক্ত করার আলাদা বিধান রাখা হবে। ফৌজদারি কার্যবিধির সংশোধনীতে ১৫০ দিনের মধ্যে মামলার তদন্তকাজ নিষ্পত্তির বিধান রাখা হবে। এর মধ্যেই মামলার তদন্ত শেষ করতে হবে বলে জানান মন্ত্রী।
সভায় আইন প্রতিমন্ত্রী এ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ১০০ ভাগ মামলায় সাজা হলেও বাংলাদেশে ৮০ ভাগ মামলার আসামী খালাস পেয়ে যান। এসময় তিনি মিথ্যা মামলা কমানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের পরামর্শ দেন।
অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম নারী নির্যাতন এবং নারীর উপর অবিচার কমাতে পুরুষের দ্বিতীয় বিয়ে আইনগতভাবে নিষিদ্ধ করার পরামর্শ দেন।
ফৌজদারি কার্যবিধি সংশোধনবিষয়ক বিলের খসড়ার ব্যাপারে মতামত সংগ্রহ করতে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়। এটি আইন, বিচার এবং সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয় আয়োজন করে। এতে সভাপতিত্ব করেন সংসদবিষয়ক বিভাগের সচিব শহিদুল হক।
সেমিনারে আরো উপস্থিত ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, জাতিসংঘের উন্নয়নবিষয়ক সংস্থার (ইউএনডিপি) কান্ট্রি ডিরেক্টর পলিন ট্যামিস এবং বিভিন্ন জেলা বারের আইনজীবীরা।

এম. এস/১৭.৪৫
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৬৩৭ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :