ব্রেকিং নিউজ:
সিরিয়ার সহিংসতায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে শিশুরা
অনন্য নন্দিতা    জুন ২৭, ২০১২, বুধবার,     ০৬:১১:২৯

 

এখনও সহিংস পথেই হাঁটছে আসাদ সরকার। যদিও কফি আনানের শান্তি প্রস্তাবে কিছুটা সম্মত হয়েছে তারা।এদিকে আসাদ সরকারকে ঠেকাতে বিরোধীরাও প্রতিরোধ করছে। আর দু'পক্ষের এই সহিংস আচরণের বলি হচ্ছে অসহায় শিশুরা।
হত্যা, শারীরিক নির্যাতনের পাশাপাশি শিশুদের মানব ঢাল হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে বলে তথ্য দিয়েছে জাতিসংঘ।
হোমস, দেরা ও ইদলিব এখন মৃতপুরী। বেসামরিক বাড়িঘরে অবিরাম গোলা হামলা চালিয়ে যাচ্ছে আসাদ সেনারা। তাদের সাথে হাত মিলিয়েছে আসাদ সমর্থিত মিলিশিয়া বাহিনী সাবিহা'র সদস্যরা। প্রান বাঁচাতে ছুটে বেড়াচ্ছে সিরিয়ার মানুষ। কখনও মা বাবার সাথে আবার কখনো একাই ছুটতে দেখা যাচ্ছে বিচ্ছিন্ন--আতঙ্কিত সিরিয়ার শিশুদেরকে।
দেড় বছরের এই রক্তক্ষয়ী সংঘাতে সিরিয়ায় মারা গেছে অন্তত ৫শ শিশু- শারীরিক নির্যাতন চলেছে আরো প্রায় ৩শ শিশুর উপরে -ইউনিসেফ এক সাম্প্রতিক রিপোর্টে জানিয়েছে।
জাতিসংঘের শিশু ও স্বশস্ত্র যুদ্ধ বিষয়ক বিশেষ দূত রাধিকা কমোরাস্বামী যেন আঁতকে উঠেন,“ ৯ বছরের শিশুরাও হত্যা, নির্যাতন আর ধর্ষণের শিকার হচ্ছে। শিশুদের অঙ্গচ্ছেদ করতেও দ্বিধা করছেনা আসাদ সেনারা । সিরিয়ার স্কুল গুলোকে ব্যবহার করা হচ্ছে সেনাক্যাম্প ও ডিটেনশন সেন্টার হিসেবে”।
১৪ বছরের শিশু রাধিকার শরীরে আঘাতের চিহ্ন প্রমাণ করে কতোটা বর্বর আচরনের শিকার হচ্ছে শিশুরা। অনেক শিশুদের ইলেকট্রিক শকও দেয়া হচ্ছে।
এখানেই শেষ নয়, বিদ্রোহীদের হামলা থেকে বাঁচতে মানব ঢাল হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে শিশুদের ।অনেক সময় হাতে তুলে দেয়া হচ্ছে অস্ত্র।
বিশ্লেষকরা বলছেন, বিরোধী ‘ফ্রি সিরিয়ান আর্মি’র যোদ্ধাদের মনে ভয় ধরাতেই গণহারে শিশু নির্যাতন করা হচ্ছে। ভবিষ্যতের সিরিয়াকে নেতৃত্ব-শুণ্য করার নীল-নকশাও হতে পারে এই অমানবিক কর্মযজ্ঞ। আর এসবের মাঝেই দীর্ঘমেয়াদি এক গৃহযুদ্ধের দিকে দেশকে ঠেলে দিচ্ছেন প্রেসিডেন্ট আসাদ।

এ. এন./এস. এস./ এম. এস./ ১৮.৩০
বিভাগ: বিশ্বযোগ   দেখা হয়েছে ৫৩১ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :