ব্রেকিং নিউজ:
পদ্মা সেতুর ঋণ চুক্তি বাতিল করলো বিশ্বব্যাংক
ফারজানা রূপা    জুন ৩০, ২০১২, শনিবার,     ০১:১৪:২৬

 

পদ্মা সেতু প্রকল্পের ঋন চুক্তি বাতিল করেছে বিশ্বব্যাংক।এক বিবৃতিতে তারা জানিয়েছে সেতুর নির্মাণ প্রকল্পে পরামর্শক নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ তদন্তে বাংলাদেশ যথাযথভাবে সাড়া না দেয়ায় তারা ঋণচুক্তি বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
বিশ্বব্যাংকের এই সিদ্বান্তকে-রহস্যজনক বলেছেন যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বিশ্বব্যাংক সাথে থাকুক বা না থাকুক,পদ্মা সেতু হবেই এমন দৃঢ় সিদ্ধান্তে অনড় বাংলাদেশ সরকার । আর তাই দুর্নীতির অভিযোগে বিশ্বব্যাংক যখন অর্থায়ন স্থগিত করে তখন থেকেই চলছিল বিকল্প অর্থের খোঁজ। একপর্যায়ে এই প্রকল্পে অর্থায়নে এগিয়ে আসে মালয়েশিয়া, গেল বৃহষ্পতিবার চূড়ান্ত প্রস্তাব দেয় তারা।
যোগাযোগমন্ত্রীর এ কথার দুদিন পরই পদ্মাসেতু প্রকল্প থেকে অর্থায়ন চুক্তি বাতিলের ঘোষণা দিল বিশ্বব্যাংক। তাদের ওয়েব সাইটে প্রকাশিত বিবৃতিটিতে বলা হয়েছে,বিশ্বব্যাংকের কাছে বাংলাদেশের উচ্চ পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তাদের দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণ আছে।
গত দুই বছরে সংস্থাটি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী ও দুদকের চেয়ারম্যানের কাছে দুর্নীতির তথ্য দিয়েছে। তাতে দুর্নীতির বিষয়টি তদন্তের অনুরোধ করে সহায়তা চাওয়া হয়।
বিবৃতিটিতে বিশ্বব্যাংকের আন্তরিকতার বেশ কয়েকটি উদাহরণ তুলে ধরা হয়েছে। এক জায়গায় বলা হয়েছে, গোটা পরিস্থিতি ব্যাখ্যার জন্য একটি উচ্চ পর্যায়ের দল পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু, বাংলাদেশ সরকারের সন্তোষজনক সাড়া মিলেনি।
বিবৃতির একেবারে শেষ ধাপে বলা হয়েছে, যারা বিশ্বব্যাংকে টাকা দেয় তাদের প্রতি এই সংস্থার নৈতিক দায়বদ্ধতা আছে। তাই দুর্নীতির তথ্য পেয়েও চোখ বন্ধ করে থাকতে পারেনা বিশ্বব্যাংক।
বাংলাদেশ সময় সকালে যখন বিশ্বব্যাংকের ওয়েবসাইটে এই ঘোষণা ভেসে ওঠে তখন নতুন রেললাইন উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন যোগাযোগমন্ত্রী। সেখানে একাত্তরকে জানালেন, বিশ্বব্যাংকের এই আচরণ রহস্যজনক।
পদ্মাসেতু নির্মানে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ২৯০ কোটি মার্কিন ডলার বা প্রায় ২২ হাজার কোটি টাকা। এরমধ্যে প্রায় ৯ হাজার কোটি টাকার সমান ১২০ কোটি ডলার দেয়ার জন্য চুক্তি করেছিল বিশ্বব্যাংক।
এদিকে পদ্মা সেতু নির্মাণে বিশ্বব্যাংকের ঋণ বাতিল ঘোষণাকে সম্পূর্ণভাবে অগ্রহণযোগ্য বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। শনিবার তাৎক্ষণিক এক বিবৃতিতে তিনি পদ্মা সেতু প্রকল্পে আজ পর্যন্ত কোনো ধরনের দুর্নীতি হয়নি বলে জোরালো দাবি করেছেন।
অর্থমন্ত্রীর পক্ষে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মো. শাহেদুর রহমানের স্বাক্ষরিত এ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সোমবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বিস্তারিত বিবৃতি দেবেন।

এফ.আর./ এম.এস/
বিভাগ: দেশযোগ   দেখা হয়েছে ৭৭৫ বার.

 

শেয়ার করুন :

Khalid Mohammad বলেছেন  শেষ পর্যন্ত তীরে আসার আগেই তরী ডুবালাম। এই পদ্মা সেতু নিয়ে আর কত টালবাহানা করবে বাংলাদেশ এবং বিশ্ব ব্যাংক? কে অর্থায়ন দিবে বাংলাদেশকে?
01 July 2012
 
মন্তব্য :