ব্রেকিং নিউজ:
লন্ডনে অলিম্পিকের নিরাপত্তা বিতর্ক তুঙ্গে
নাজিব নিয়াজ    জুলাই ১৬, ২০১২, সোমবার,     ০৯:৩৩:৪৭

 

অলিম্পিকে বিশাল নিরাপত্তার আয়োজন করতে গিয়ে খরচের চাপে পড়েছে ব্রিটেন। সাড়ে তিনশো কোটি পাউন্ডের বাজেট বাড়তে বাড়তে শেষ পর্যন্ত এক হাজার একশো কোটি পাউন্ডে ঠেকেছে। এর বেশিরভাগটাই ব্যয় হচ্ছে কেবল নিরাপত্তা খাতে।
কদিন পরই পর্দা উঠবে অলিম্পিক্সের। কিন্তু উৎসব নয়, সমর সাজে ব্যস্ত এখন লন্ডন। জলে-স্থলে-অন্তরীক্ষে চলছে মহড়া। আর এসবের খরচ যোগাতে নিরাপত্তা বাজেট বাড়ানো হয়েছে দ্বিগুণ। মূল খরচও ছাড়িয়ে গেছে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে সাড়ে সাতশো কোটি পাউন্ড।
খরচ নিয়ে বাড়াবাড়ির কারণে এরই মধ্যে কেউ কেউ বলেছেন অলিম্পিক এক শ্বেতহস্তী। কেউবা বলছেন পুঁজিবাদের জাগ-যজ্ঞি। এর মাঝে বিশ্বের সবচেয়ে বড় নিরাপত্তা সংস্থা জি-ফোরএস ঘোষণা দিয়েছে তাদের সামর্থ্যে আর কুলোচ্ছে না। চুক্তি অনুযায়ী ১৩ হাজার দুশো নিরাপত্তা রক্ষী তারা যোগান দিতে পারবে না। এতে তাদের লোকসান দাঁড়াবে পাঁচ কোটি পাউন্ড। তাই বলে দমে যাননি আয়োজকেরা।
অলিম্পিক আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান স্যাবাস্তিয়ান কোয়ে বলেন, “ কদিন আগে লোক নিয়োগে চ্যালেঞ্জের কথা জানিয়েছে জি-ফোরএস। কিন্তু তাই বলে এমন ভাবা ঠিক হবে না, নিরাপত্তা রক্ষীর সংখ্যা নাটকীয়ভাবে কমে যাবে। এটা হতেই পারে না। আমাদের ভেন্যু এবং অলিম্পিক পার্কের আশপাশে অনেকগুলো বাহিনী থাকবে”।
নিরাপত্তার দায়িত্বে লন্ডনে এখন নিয়োজিত আছে জি-ফোরএসের প্রায় সাত লাখ কর্মী। তল্লাশি চালাচ্ছে নগরীর এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত। ২৭ জুলাইয়ের এ আয়োজনকে ঘিরে ব্রিটিশ সরকার অবশ্য আরো সেনা মোতায়েনেও প্রস্তুত। আর তা হয়ে উঠলে অলিম্পিক্সে সব মিলিয়ে সেনা সংখ্যা দাঁড়াবে সতেরো হাজার।
এদিকে ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থেরেসা মে বলেন, “ জি-ফোরএস এবং এবং অলিম্পিক আয়োজক কমিটির সাথে আলোচনা করে আমি এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী সেনাসংখ্যা বাড়াতে একমত হয়েছি। আমার আবেদনে সাড়া দিয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী অতিরিক্ত সাড়ে তিন হাজার সেনা মোতায়েনের অনুমতি দিয়েছেন”।
এসব কারণেই নিরাপত্তা বাজেট ২৮ কোটি থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৫ কোটি পাউন্ডে। অথচ এক প্রতিবেদনে বলায় হয়েছে, এমন খরুচেপনার কারণে লন্ডনবাসীর ঘাড়ে চাপবে হাজার কোটি পাউন্ডেরও বেশি করের বোঝা। তবে আয়োজন নিয়ে সন্তুষ্ট কর্তৃপক্ষ।
আর লন্ডনের মেয়র বরিস জনসনের মতে, “ আমি আশা করছি সারা বিশ্ব আমাদের এই অলিম্পিক্স উপভোগ করবে। আতশবাজিতে বেশি খরচ না করে আমরা আমাদের মতো করে এর আয়োজন করছি”।
বাজি না পোরালেও আকাশে হেলিকপ্টার কিংবা টাইফুন জেট থাকছে সারাক্ষণ। ত্রিশ মাইল এলাকায় বিমান চলাচলেও রয়েছে বিধি নিষেধ। পূর্ব লন্ডনে অলিম্পিক পার্কের আশপাশে দুটি আবাসিক ভবনে বসানো হয়েছে ভূমি থেকে আকাশে ছোড়ার রকেট। থাকছে রাজকীয় নৌবাহিনীর দুটি রণতরী।

এন. এন./ এম. এস./ ২১.১৫
বিভাগ: বিশ্বযোগ   দেখা হয়েছে ৫৭৬ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :