ব্রেকিং নিউজ:
ক্লিনিকের বিল মেটাতে নবজাতককে বিক্রি করলেন মা
নিউজ ডেস্ক    জুলাই ৩১, ২০১২, মঙ্গলবার,     ১২:৫৯:৩৯

 

ক্লিনিকের বিল মেটাতে নবজাতক সন্তানকেই বিক্রি করতে হলো কুষ্টিয়ার এক মাকে। সোমবার রাতে কুষ্টিয়া শহরের আলো হেলথ ক্লিনিকে এঘটনা ঘটে। শিশুটির বাবা মা জানিয়েছেন দারিদ্রের কারণে সন্তান বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছেন তারা।
শুক্রবার সকালে, কুষ্টিয়া শহরের আলো ক্লিনিকে ভর্তি হন ভ্যান চালক মজনু’র স্ত্রী কনা বেগম। ওইদিনই একটি ছেলে হয় তাঁর। কিন্তু রোববার ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ সাড়ে ৭ হাজার টাকার বিল ধরিয়ে দিলে দিশেহারা দরিদ্র পরিবারটি বাধ্য হন সন্তানটিকে বিক্রি করতে।
নবজাতকের মা কনা বেগম বলেন, আমরা অনেক গরীব। ক্লিনিকের বিল দেয়ার টাকা ছিলনা তাই ১০,০০০ টাকায় সন্তানকে বিক্রি করেছি।
শিশুটিকে কিনেছেন কুষ্টিয়ার হরিপুর এলাকার নিঃসন্তান এক দম্পতি। তারা জানিয়েছেন, ক্লিনিকের টাকা শোধ করার শর্তে শিশুটিকে দেয়া হয়েছে ।
সন্তান ক্রেতা শেফালী খাতুন জানান, সাত মাস থেকে যাবতীয় খরচ দিয়ে আসছে। বিনিময়ে বাচ্চাটি তারা নিবে বলে আগে থেকেই কথা ছিল।
দুইপক্ষ বিষয়টি স্বীকার করলেও বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বীকার করে ক্লিনিকের মালিক গাজী মাহবুব রহমান বলেন, আমার ক্লিনিকে এ ধরণের ঘটনা ঘটেনি। ক্লিনিক থেকে শিশু ও মাকে আলাদা ছাড়া হয়না। পরে বাইরে গিয়ে তারা কি করেছে সেটা আমার জানার কথা নয়।
কুষ্টিয়া’র সিভিল সার্জন তরুন কান্তি হালদার বলছেন, শিশু বিক্রি একটি দণ্ডনীয় অপরাধ। এখনও আমাদের কাছে এ ধরণের কোন অভিযোগ আসেনি, অভিযোগ এলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
বর্তমানে শিশুটি সুস্থ্য আছে। ওই ক্লিনিকে এখনো চিকিৎসা নিচ্ছে। তবে এরই মধ্যে ওর মা-বাবা ক্লিনিক ছেড়ে চলে গেছে ।

বি.এইচ/এ.আর/১৬৪৫
বিভাগ: দেশযোগ   দেখা হয়েছে ৬৬৬ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :