ব্রেকিং নিউজ:
১৯ পদক নিয়ে ফেলপস ‘সর্বকালের সেরা’ অলিম্পিয়ান
নিউজ ডেস্ক    আগষ্ট ০১, ২০১২, বুধবার,     ০৪:৩৫:০২

 

বিশ বছর আগে মায়ের হাত ধরে বাল্টিমোরের সুইমিং পুলে এসে সাত বছর বয়েসি যে ছোট্ট ফেলপস তার এলোমেলো উদ্যমকে জয় করার জন্য দাপাদাপি করতো, সেই ফেলপসই আজ ‘সর্বকালের সেরা’ অলিম্পিয়ান।
মঙ্গলবার রাত ঠিক ৯টা ০৪ মিনিটে স্ট্র্যাডফোর্ডের অ্যাকোয়াটিক সেন্টারে ফেলপসের দল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র যখন লন্ডন অলিম্পিকের ২০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলের স্বর্ণ জিতেছে, তখন ‘মাইকেল ফেলপস’ নামটি লেখা হয়ে গেছে আধুনিক অলিম্পিকের ১১৬ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি পদক জেতা ক্রীড়াবিদ হিসেবে।
৪ X ২০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলেতে দলগত স্বর্ণ জয়ের পর মোট ১৯টি পদক নিয়ে মার্কিন সাঁতারু ফেলপস শেষতক ভেঙ্গে ফেললেন সেই ১৯৬৪ সাল থেকে আগলে রাখা সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের জিমন্যাস্ট লারিসা লাতিনিনার সবচেয়ে বেশি পদক জয়ের রেকর্ড।
এর এক ঘন্টা আগেই ফেলপস লাতিনিনার রেকর্ড ছুঁয়ে ফেলেন ২০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে রূপা জিতে –দঃ আফ্রিকার চ্যাঁড-লে ক্লসের কাছে হেরে।
অবশ্য জলের জাদুকর ফেলপসের জন্য লন্ডন অলিম্পিকের শুরুটা হয়েছিল দারুন হতাশার মধ্য দিয়ে। নিজের প্রথম ইভেন্ট ৪০০ মিটার ব্যক্তিগত মিডলে তিনি শেষ করেন চতুর্থ স্থানে থেকে।
১৫ বছর বয়সে ২০০০ সালের অলিম্পিক অভিষেকের পর এই প্রথম ফেলপস সুইমিং পুল থেকে ফেরত আসল খালি হাতে- অলিম্পিক ফাইনালের কোন ইভেন্ট থেকে পদক না পেয়ে।
মা ডেবি কিন্তু জানতেন, ফেলপস বাবা-মার বিচ্ছেদের ক্ষোভ ঠিকই ঝাড়বে সুইমিং পুলের শান্ত জলে- উঠে আসবে ADHD (Attention Deficit Hyperactivity Disorder- যত্ন-বঞ্চিত অতিসক্রিয়তায়) ভোগা ফেলপস সেই সিডনী অলিম্পিকের মতন বিজয়ীর বেশে।
এরপর ফেলপস নিজের প্রিয় ইভেন্ট ২০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে চ্যাঁড-লে ক্লসের ০.০৫ সেকেন্ড পেছনে থেকে ফিনিশিং টেপ ছুঁয়ে সোনা হাতছাড়া করেন, হাতছাড়া করেন প্রথম পুরুষ সাঁতারু হিসেবে টানা তিন অলিম্পিকে একই ইভেন্টে সোনা জয়ের সুযোগ।
তবে সতীর্থ রায়ান লোক্টি,ডইয়ার কনর ও বার্নেস রিকিকে নিয়ে তার যুক্তরাষ্ট্র দল ঠিকই ন্যূনতম ৬ মিনিট ৫৯.৭০ সেকেন্ডে ৪ x ২০০ মিটার পাড়ি দেয়- ফ্রান্স (৭ মিনিট ২.৭৭ সেকেন্ড) ও চীনের (৭ মিনিট ৬.৩০ সেকেন্ড) সাঁতারুদের পেছনে ফেলে ।
এই ফ্রিস্টাইল রিলেতে দলগত স্বর্ণ জিতে সর্বকালের সেরা সাঁতারু মাইকেল ফেলপস নিজের করে নেন অলিম্পিকে সবচেয়ে বেশি ১৯ টি পদক জয়ের রেকর্ড।
এবারের অলিম্পিকে এটি তাঁর প্রথম এবং এক যুগের অলিম্পিক ক্যারিয়ারের পঞ্চদশ সোনা।
এখনও লন্ডন অলিম্পিকে ২০০ মিটার ব্যক্তিগত মিডলে ও ১০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে ইভেন্ট থেকে সোনা জয়ের সুযোগ আছে তার –সম্ভাবনা আছে শ্রেষ্ঠত্বের এক অত্যুচ্চ চূড়ায় নিজেকে নিয়ে যাবার।

এম. এস./১১.৪৬
বিভাগ: খেলাযোগ   দেখা হয়েছে ৮৭৭ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :