ব্রেকিং নিউজ:
মিয়ানমার সহিংসতায় মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ
নিউজ ডেস্ক    আগষ্ট ০৫, ২০১২, রবিবার,     ০৫:২৫:৫৩

 

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে ঘটে যাওয়া সাম্প্রদায়িক সংঘাতে ব্যাপক ভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রমান পেয়েছে জাতিসংঘ। মিয়ানমার সফর শেষে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক দূত টমাস ওজিয়া কুইনটানা বলেছেন, সেখানে হত্যা আর নির্যাতনের ঘটনায় নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে স্বাধীন-নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করেছেন জাতিসংঘের এই কর্মকর্তা।
মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের উত্তেজনা এখনো থামেনি। সিতুই শহরের রাস্তায় এখনো পুলিশের স্বশস্ত্র প্রহরা চলছে। গত জুন মাসের সহিংস দাঙ্গায় রাজ্যটিতে মারা যায় অন্তত ৭৮ জন। বাস্তুচ্যুত হয়েছে হাজারো মানুষ। রাখাইন বৌদ্ধ আর রোহিংগা মুসলমানদের এই দাঙ্গায় মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে ব্যাপক মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ এনেছে নিউইয়র্ক ভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। এসব অভিযোগ খতিয়ে দেখতেই মিয়ানমার সফরে আসেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক দূত টমাস ওজিয়া কুইনটানা।
ছয় দিনের সফর শেষে সেখানে ব্যাপক মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রমান পাবার ইঙ্গিত দিয়েছেন জাতিসংঘের এই কর্মকর্তা। সার্বিক পরিস্থিতিতে উদ্বেগ জানিয়ে গত জুন মাসের সাম্প্রদায়িক সংঘাতের ঘটনার আবারো তদন্ত দাবী করেছেন তিনি। তিনি বলেছেন, ‘রাখাইন রাজ্যে কি ঘটেছে তা জানা জরুরী এবং এর দায় নিশ্চিত করতে হবে। এছাড়া এই সংকটের সমাধান সম্ভব নয়। অতিরঞ্জিত ও বিকৃত তথ্য কেবল অনাস্থা আর উত্তেজনাই উস্কে দেবে। এ জন্য জরুরী ভিত্তিতে তদন্তের আহবান জানাই।’
জাতিসংঘ দূত জেনেছেন নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা কিভাবে নিরীহ মানুষদের হত্যা নির্যাতন আর গণ গ্রেফতার করেছে। তবে এ বিষয়ে চূড়ান্ত রিপোর্টটি আসন্ন জাতিসংঘ সাধারন অধিবেশনে জমা দেবেন তিনি। এ ছাড়া মিয়ানমারের গনতান্ত্রিক উত্তরনের জন্য রাজ বন্দীদের মুক্তি দেয়ারও আহবান জানান তিনি। সফরের সময় বিরোধীদলীয় নেত্রী সুচি ও সরকারী কর্মকর্তাদের সাথেও দেখা করেন জাতিসংঘ দূত।

এস.এম.বি/০৫.২৫
বিভাগ: বিশ্বযোগ   দেখা হয়েছে ৬৪৩ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :