ব্রেকিং নিউজ:
পরকিয়া প্রেমের কারণে খুন হননি সাংবাদিক দম্পতি
ফারজানা রূপা    আগষ্ট ০৭, ২০১২, মঙ্গলবার,     ০৪:০২:৫৫

 

পরকিয়া প্রেমের কারণে,পরিচিত কারো হাতে খুন হননি সাংবাদিক দম্পতি মেহেরুন রুনী ও সাগর সরওয়ার।সবশেষ লাশ তুলে র্যা ব যে ফরেনিসক পরীক্ষা চালায়,তাতে দু'জনের কারো শরীরে,মাদক বা কোনো ধরনের বিষ খুঁজে পাওয়া যায়নি। আর,একাত্তরের অনুসন্ধানেও বেরিয়ে এসেছে এ হত্যাকান্ডের অজানা কিছু সূত্র। পরিচিত জনেরা বরাবরই সাগর রুনীর সুখী দাম্পত্য জীবনের গল্পটাই জানতেন। দুজনের একই পেশায় কাজের সুযোগে, পরিচয় থেকে প্রেম--গড়িয়েছিল বিয়েতে। মুখ রোচক গল্পের একটি,ঘটনার দিন রুনী বাসায় কি করে তা হাতেনাতে জানতে ডিউটি শেষের আগেই সাগর বাসায় ফিরেছিলেন বলেই খুনের ঘটনাটি ঘটে। অথচ একেবারে উল্টো তথ্য সাগরের সহকর্মীদের জানা। আরো ভেতরের ঘটনা হলো, ২০০২ সালে বিয়ের পরেই রুনি জানতে পারে তার শরীরে কিছু মেয়েলী সমস্যা আছে। ডাক্তার দেখান তিনি। স্ত্রী ও প্রসূতি রোগ বিশেষজ্ঞ সামিনা চৌধুরী বলেন,তাদের conjugation of marriage ছিল। এই চিকিসক, রোগীর তথ্য গোপন রাখার নীতির বাইরে কথা বলেছেন। উদ্দেশ্য –হত্যাকান্ড নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য যেনো বন্ধ হয় । সবশেষ গত মে মাসে কবর থেকে তোলা হয়েছিল সাগর রুনীর লাশ। কারন, র্যা ব জানতে চেয়েছিল, পরকীয়া বা অন্য কারনে মৃত্যুর আগে বিষ খাওয়ানো হয়েছিল কিনা । ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ডা: সোহেল মাহমুদ জানান,কোন বিষ পাওয়া যায়নি। তদন্তে ব্যর্থতা মেনে নেওয়া গোয়েন্দা বিভাগ ডিবি এবং তারপর তদন্তের দায়িত্ব নেওয়া র্যা ব কোনো কথা বলছেনা। তবে,খুনের ধরন বলছে,চেনা মানুষের পক্ষে এমন নিষ্ঠুর আচরন সম্ভব নয়। তাহলে কারা ঘটালো সাংবাদিক হত্যার এ যাবত কালের ভয়াবহ ঘটনাটি? সাংবাদিক সাগর রুনী সেই খবর আর জানাতে পারবেন না।তবে খুনীরা রক্ত মাখা বটি সহ ফেলে গেছে অনেকগুলো আলামত । তদন্ত দল তার কতটা কাজে লাগিয়েছে,সেটি ভিন্ন গল্প ।


বিভাগ: FIR    দেখা হয়েছে ৭৩০ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :