ব্রেকিং নিউজ:
আজও কাটেনি ভিয়েতনাম যুদ্ধের রাসায়নিক অস্ত্র্রের ভয়াবহতা
নিউজ ডেস্ক    আগষ্ট ০৯, ২০১২, বৃহস্পতিবার,     ০৫:২২:৩৮

 

ভিয়েতনাম যুদ্ধের ভয়াবহতা এখনো বয়ে বেড়াচ্ছেন সেখানকার মানুষ। এজেন্ট অরেঞ্জ নামের এক ধরনের রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছিলো এই যুদ্ধে। তার প্রভাব এখনো রয়ে গেছে সেখানে। এই ভয়াবহতার কথা জাপানের নাগাসাকির মতো। চার দশক পরও যুদ্ধের ক্ষত বয়ে বেড়াচ্ছেন ভিয়েতনামের মানুষ। ভিয়েতনাম যুদ্ধে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করে বিশ্বব্যাপী সমালোচনার মুখে পড়েছিলো যুক্তরাষ্ট্র।
যুদ্ধ শেষ হয়ে গেছে ৩৭ বছর আগে। কিন্তু তার ভয়াবহতা আজও শেষ হয়নি ভিয়েতনামে। ১৯৭৫ সালে ভিয়েতনাম যুদ্ধে ডাইঅক্সিন সমৃদ্ধ অস্ত্র ব্যবহার করেছিলো যুক্তরাষ্ট্র। এর প্রভাবে ভিয়েতনামে এখনো প্রতিবন্ধী শিশু জন্মের হার বেশি। বয়স্কদের মধ্যে আছে ক্যানসার, ডায়াবেটিস আর হৃদরোগের প্রবনতা। সম্প্রতি একটি পরীক্ষায় দেখা গেছে এখানো এখানকার মাটিতে এ উপাদান আছে।
এজেন্ট অরেঞ্জের শিকার হয়েছিলেন ভিয়েটনামের নাগরিক ভো ডুয়ক। এর ভয়াবহতার কথা জানাতে গিয়ে বলেন, আমরা জানতামই না যে এজেন্ট অরেঞ্জের প্রভাব এখনো আছে। যখনই জানলাম ডাইঅক্সিন এখনো পাওয়া যাচ্ছে, আমি নিজের ও সন্তানদের ভবিষ্যত নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছি।
এতবড় একটা ঘটনার পর একটু দুঃখ প্রকাশ করে দায় সেরেছে যুক্তরাষ্ট্র। এজেন্ট অরেঞ্জ এর বিষয়টি মূলত আইনি উল্লেখ করে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন বলেছেন, এটা মোকাবেলা করতে আমরা অর্থের বরাদ্দ বাড়িয়েছি।
শুধু মানুষই নয়,মারাত্মক এই বিষের প্রভাব পড়েছে,মাছসহ অন্যান্য প্রাণীর প্রজননেও। কেবল অর্থ দিয়েই এর ক্ষতিপূরণ কিংবা এর দায় এড়ানো সম্ভব নয়। যুদ্ধে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার না করার অঙ্গীকার করতে হবে সেই সাথে বাড়াতে হবে বিশ্বব্যাপী সচেতনতা।
এ.এস/এস.এম.বি/০৫.২০

বিভাগ: বিশ্বযোগ   দেখা হয়েছে ১২৫১ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :