ব্রেকিং নিউজ:
স্বজন হারিয়ে যেমন ছিলেন শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা
নিউজ ডেস্ক    আগষ্ট ১৫, ২০১২, বুধবার,     ০১:৩০:৫৯

 

১৯৭৫সালের ১৫ই আগষ্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার সময় দেশের বাইরে থাকায় বেঁচে যান তার দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। এরপর রাজনৈতিক আশ্রয়ে ভারতে ছিলেন প্রায় ৬ বছর।
হত্যাকান্ডের প্রায় ৫ ঘন্টা পর ব্রাসেলসে খবর পৌঁছায় শেখ হাসিনার স্বামী ড. এম ওয়াজেদ মিয়ার কাছে। বোন রেহানা আর পুত্র ও কন্যা-সহ সেখানেই ছিলেন শেখ হাসিনা। তার স্বামীকে জানানো হয় যে দেশে ক্যূ হয়েছে। সেদিন প্যারিস যাওয়া বাতিল করে জার্মানীতে রাষ্ট্রদুতের বাসায় যান তিনি। সে সময়ের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. কামাল হোসেন’ও ছিলেন সেখানে।
সেদিনের কথা মনে করতে গিয়ে গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেন, যুগোস্লাভিয়া থেকে তিনি জানতে পারেন দেশে ভয়াভহ কিছু ঘটেছে। সে জন্যই জার্মানির বনে তিনি বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হুমায়ুন রশীদ চৌধুরীর বাসভবনে যান। বুঝতেই পারেন শেখ হাসিনা তখন বাবাকে হারিয়েছেন তার মানসিক অবস্থা কতটা বিধ্বস্ত।
পরে ড. ওয়াজেদ মিয়া এক নিবন্ধে লিখেছেন, দু’দিন পর শেখ হাসিনা ও রেহানার রাজনৈতিক আশ্রয় মেলে ভারতে। মাত্র ১০০ ডলার হাতে নিয়ে ২৪ আগস্ট তারা দিল্লীর উদ্দেশ্যে রওনা দেন। তখনো পুরো ঘটনা জানেন না শেখ হাসিনা। দু’সপ্তাহ পর ভারতের তৎকালিন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধির শেখ হাসিনাকে জানান, তার পরিবারের কেউ বেঁচে নেই। সান্তনা মেলে আশেপাশের মানুষের কাছে।
ওয়াজেদ মিয়ার দৈনিক বাষট্টি রূপি পঞ্চাশ পয়সার ফোলোশীপের টাকায় দিল্লীতে তাদের সংসার চলে। ১৯৮১ সালের ১৭ মে দেশে ফেরার আগ পর্যন্ত ভারতেই ছিলেন শেখ হাসিনা।


এ.আই/এ.আর/১৩৩০
বিভাগ: প্রধান সংবাদ    দেখা হয়েছে ৩৯৭৯ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :